ঢাকা, শনিবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭ সফর ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

পুলিশের কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র প্রিমিয়ারের ছাত্রীনিবাস

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০৯ ঘণ্টা, জুন ৩, ২০২০
পুলিশের কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র প্রিমিয়ারের ছাত্রীনিবাস প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীনিবাস

চট্টগ্রাম: করোনা মোকাবেলায় চট্টগ্রামে এগিয়ে আসছে নানা সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন। করোনা আক্রান্ত বা করোনার ঝুঁকিতে থাকাদের সহায়তায়ও উদ্যোগের কমতি নেই।

তবে প্রথমবারের মত কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে নগরীর প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে এসেছে করোনাযুদ্ধে অগ্রণী ভূমিকা রাখা পুলিশ সদস্যদের সহায়তায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এক মাস আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির ছাত্রীনিবাসকে কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের অনুমতি দেন।

সেই থেকে চট্টগ্রামে করোনার রোগীদের সংস্পর্শে আসা বা করোনার ঝুঁকিতে থাকা পুলিশ সদস্যদের আবাসন সুবিধা নিশ্চিতে কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত এই ছাত্রীনিবাস।

প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার খুরশিদুর রহমান জানান, গেল এক মাস ধরে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীনিবাসকে কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ছাত্রীনিবাসটি কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র হিসাবে কাজে লাগাতে জেলা প্রশাসনকে হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া হিসাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন এবং বোর্ড অব ট্রাস্টিজের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে আলাপ করে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য, অধুনা নগরীর সাগরিকাস্থ ছাত্রীনিবাসটিতে ছাত্রী ভর্তির জন্য প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হলেও এখনও পর্যন্ত ছাত্রী ভর্তি করা হয়নি।

পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাঈনুর রহমান বলেন, সাগরিকায় প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ছাত্রীনিবাসটি এখন পুলিশ সদস্যদের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যেসব পুলিশ সদস্য করোনা রোগীদের সংস্পর্শে এসেছে কিংবা যাদের করোনা হওয়ার আশংকা রয়েছে তারা এই কোয়ারারেন্টিন কেন্দ্রে নিজেদের আলাদা করে রাখছেন।

তিনি আরও জানান, বর্তমানে এই কেন্দ্রে ৪০ জন পুলিশ সদস্য রয়েছে যারা নানাভাবে করোনা রোগীর সংস্পর্শে এসেছেন বা আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন। এদের সকলের প্রাত্যহিক প্রতিবেদন তৈরি করা হয় এবং নিয়মিতভাবে চিকিৎসক তাদের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেন। কারও করোনা উপসর্গ তীব্র হলে আমরা তাদের পুলিশ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেই।

তিনি বলেন, এই হোস্টেলটি অবকাঠামোগতভাবে কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র হিসাবে ব্যবহারের জন্য সম্পূর্ণ উপযোগী। এখানে আলাদা আলাদা ৪৫টি কক্ষ রয়েছে যেখানে একজন আরেকজনের সংস্পর্শে না এসে নিরাপদে থাকতে পারছেন। এছাড়াও এখানে উন্নত টয়লেট সুবিধা রয়েছে। অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার এই কেন্দ্রের কার্যক্রম তত্ত্বাবধান করছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার খুরশিদুর রহমান বলেন, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের আটতলা ছাত্রীনিবাসটিতে আলাদা খাট, বিছানা, নিজস্ব কেবিনেট, টেবিল, চেয়ারের পর্যাপ্ত সুবিধা রয়েছে। এমনকি জেনারেটর ও ইন্টারকম সুবিধাও রয়েছে ছাত্রীনিবাসটিতে। নিরাপত্তা নিশ্চিতে আনসার সদস্যও আছেন।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে আন্তর্জাতিকমানের উচ্চশিক্ষা দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে সাবেক সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর উদ্যোগে ২০০২ সালে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে। মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুর পর বর্তমান শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেন। বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন শিক্ষায় একুশে পদকপ্রাপ্ত সমাজবিজ্ঞানী, শিক্ষাবিদ ড. অনুপম সেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২৫৬ ঘণ্টা, জুন ০৩, ২০২০
এসি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

চট্টগ্রাম প্রতিদিন এর সর্বশেষ

Alexa