সুস্থ হয়ে বাসায়, অতঃপর পুলিশ সদস্যের মৃত্যু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

এএসআই মর্তুজা কাইয়ুম।

walton

চট্টগ্রাম: ছিলো হালকা জ্বর, সঙ্গে ডায়রিয়া। করোনা উপসর্গ মনে করে নমুনা পরীক্ষাও করা হয়। পরীক্ষার ফলাফলে শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতিও পাওয়া যায়নি। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ছাড়পত্র দিলে বাসায় চলে যাওয়ার কয়েকদিন পর মৃত্যু হয় তার।

সদরঘাট থানার এএসআই মর্তুজা কাইয়ুমের এমন মৃত্যু মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে সহকর্মীদের। জ্বর ও ডায়রিয়া নিয়ে ১৯ মে থেকে বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন কাইয়ুম। সেখান থেকে ভর্তি করানো হয় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে। ২৭ মে নমুনা পরীক্ষা করার পর তার শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

ডায়রিয়া ভালো হয়ে যাওয়ার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ছাড়পত্র দেয়। পরে তাকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। বাসায় দুইদিন থাকার পর হঠাৎ ২ জুন অসুস্থ হয়ে গেলে হাসপাতালে নেওয়ার আগেই তার মৃত্যু হয়।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিসি-দক্ষিণ) এসএম মেহেদী হাসান বাংলানিউজকে বলেন, তার করোনা উপসর্গ থাকায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু পরীক্ষায় করোনা নেগেটিভ আসে। পরে ডায়রিয়াও ভালো হয়ে যাওয়ায় বাসায় যায়। দুইদিন পর ২ জুন অসুস্থ হয়ে গেলে অ্যাম্বুলেন্স আসতে আসতেই বাসায় মৃত্যু হয় কাইয়ুমের।

করোনা পরীক্ষার জন্য আবারও তার নমুনা নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখনও রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। তাকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন করা হয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

বাংলাদেশ সময়: ১২২৮ ঘণ্টা, জুন ০৩, ২০২০
জেইউ/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
Nagad
নগরের দৃষ্টি নন্দন স্থাপনায় পরিণত হবে সনদ দত্ত মহাশশ্মান
দিনে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য না ফেলতে তাপসের অনুরোধ
তিনটি করে গাছ লাগানোর নির্দেশ নিবন্ধন অধিদপ্তরের
ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযান, ৫ লাখ ৬৯ হাজার টাকা জরিমানা
চলন্ত ট্রেনে ব্যাগ-ল্যাপটপ বদল, ৯৯৯-এ ফোন করে উদ্ধার


প্লাটিনাম পরিবহনের বাসে ইয়াবা, আটক ২
হাতুড়ে ডাক্তার দম্পতির চিকিৎসায় প্রাণ গেলো নারীর!
টেস্ট ক্যারিয়ার বাঁচাতে আর ২ ম্যাচ পাচ্ছেন বাটলার!
টুই-টুই আর পিক-পিক | বিএম বরকতউল্লাহ্
ঢাকার ঝুলন্ত তার যাবে মাটির নিচে