পরীক্ষাকেন্দ্রে যাওয়া হলো না শিক্ষিকা অ্যানির

জমির উদ্দিন, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

স্বজনকে জড়িয়ে ধরে অ্যানি’র স্বামীর কান্না। ছবি: সোহেল সরওয়ার

walton

চট্টগ্রাম: পিএসসি পরীক্ষাকেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করতে বাসা থেকে বের হন তিনি। পাথরঘাটা ব্রিকফিল্ড রোডে সহকর্মীর জন্য অপেক্ষা করছিলেন। হঠাৎ দেয়ালের একটি অংশ এসে পড়ে তার ওপর। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় পটিয়ার সরকারি মেহেরআটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা অ্যানি বড়ুয়ার (৪০)।

রোববার (১৭ নভেম্বর) সকাল ৯টায় কোতোয়ালী থানাধীন পাথরঘাটায় গ্যাসের লাইনে বিস্ফোরণে দেয়াল ধসে নিহতদের একজন তিনি।

স্বামী পলাশ বড়ুয়া ও দুই ছেলে অভিষেক-অভিজিৎকে নিয়ে পাথরঘাটায় ভাড়া বাসায় থাকতেন অ্যানি বড়ুয়া। পলাশ বড়ুয়া পটিয়ার শিকলবাহায় পিডিবির প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত। বড় ছেলে অভিষেক এ বছর জেএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। ছোট ছেলে পড়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে। অ্যানি কক্সবাজারের রামু বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক সহকারী শিক্ষক ও ফঁতেখারকুল ইউনিয়নের হাইটুপী গ্রামের নিহার বড়ুয়া মাস্টারের মেয়ে।

পলাশ বড়ুয়া কান্নাজড়িত কণ্ঠে বাংলানিউজকে বলেন, আজকের পিএসসি পরীক্ষার প্রথম ডিউটিতে তাকে শাড়িও ঠিক করে দিয়েছি। পছন্দের শাড়ি পড়ে অ্যানি ডিউটিতে যাচ্ছিল। ও আগে বের হয়, আমি পরে বের হচ্ছিলাম। এরমধ্যে শুনি এ দুর্ঘটনা। আমাদের সাজানো গোছানো সংসার এক নিমিষেই শেষ। আমি ছেলেদের কি জবাব দেবো?

শিক্ষিকা অ্যানির স্বজনদের কান্না। ছবি: সোহেল সরওয়ারঅ্যানির শ্বশুর বাড়ি পটিয়ায়, বাবার বাড়ি কক্সবাজারের রামুতে। তার ভাই অনিক বড়ুয়া বলেন, আমার দুই ভাগ্নের কি হবে? তাদের কান্না থামছে না।

শুধু অ্যানি বড়ুয়ার পরিবার নয়, নিহতদের স্বজনের কান্নায় শোকাবহ পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে চমেক হাসপাতাল এলাকায়।

বাংলাদেশ সময়: ১২১৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
জেইউ/এসি/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
রাজধানীতে ১৬৭২ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক ৩
ওয়াসার এমডির বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল
বাংলাদেশ-পাকিস্তান সিরিজ দেখা যাবে না দেশি চ্যানেলে
মাধ্যমিক বিদ্যালয়-মাদ্রাসায় কেবিনেট নির্বাচন শনিবার
জাবিসাসের সভাপতি আসাদ, সাধারণ সম্পাদক মাহবুব


রোহিঙ্গারা আমাদের অতিথি: পরিকল্পনামন্ত্রী
শেবাগের মাথার চুলের চেয়ে বেশি টাকার মালিক শোয়েব!
খুলনা প্রেসক্লাবে পিঠা উৎসব শুরু শুক্রবার
পুলিশভ্যানে বসে বুকে গুলি চালান কুদ্দুস
৫৪ ওয়া‌র্ডের ৩২৫ কি.মি পথ হেঁটে ব্যাপক সাড়া পেয়েছেন তাবিথ