মাছ-মাংস ও পোলাওয়ের উপকরণের কাটতি বেশি

সরওয়ার কামাল, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চকবাজার কাঁচাবাজারে মাছ কিনছেন ক্রেতা। ছবি: বাংলানিউজ

চট্টগ্রাম: পবিত্র আশুরা ও ছুটির দিনের কারণে চট্টগ্রামের বাজারে মাছ-মাংস, পোলাও-বিরিয়ানির উপকরণের বিক্রি বেড়েছে। তবে অন্যান্য বাজারের চেয়ে এসব নিত্য পণ্যের দাম বেশি নগরের ‘অভিজাত’ কাজীর দেউড়ি বাজারে।

শুক্রবার (২১ সেপ্টেম্বর) নগরের কাজীর দেউড়ি বাজার, চকবাজার ও বহদ্দারহাট কাঁচাবাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

কাজীর দেউড়ি বাজারে প্রতিকেজি চিংড়ি মাছ বিক্রি হচ্ছে ৭০০ থেকে ৯০০ টাকা, একই চিংড়ি চকবাজারে বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৭০০ এবং বহদ্দারহাট বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে সাড়ে ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা।

কাজীর দেউড়ি বাজারে প্রতি কেজি রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৮০ থেকে ৩০০ টাকায়, লইট্যা মাছ ১২০ থেকে ১৫০ টাকা, ইলিশ মাছ ৬০০ থেকে ৭৫০ টাকা, রুপচাঁদা মাছ ৭৫০ টাকা, কাতলা মাছ ২৮০ টাকা (ছোট) ও ৩০০ টাকা (বড়), নাইলোটিকা মাছ ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা।

অন্যদিকে চকবাজারে প্রতি কেজি রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৬০ থেকে ২৮০ টাকায়, লইট্যা মাছ ১২০ থেকে ১৩০ টাকা, ইলিশ মাছ ৫৫০ থেকে ৭০০ টাকা, রুপচাঁদা মাছ ৪৫০ থেকে ৬০০ টাকা, কাতাল মাছ ২৬০ টাকা, নাইলোটিকা মাছ ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা।

কাজীর দেউড়ি বাজার ও চকবাজারে মুরগির দাম একই। প্রতি কেজি ফার্মের মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৩০ টাকা, সোনালি মুরগি ২৩০ টাকা ও দেশি মুরগি ৪০০ টাকা।

কাজীর দেউড়ি বাজারে খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ৭৫০ টাকা, চকবাজারে হাড়সহ গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪২০ টাকা থেকে ৫২০ টাকা।

কাজীর দেউড়ি বাজারে প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায়, বেগুন ৭০ থেকে ১০০ টাকায়, লাউ ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০ থেকে ৪০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ২০ থেকে ৩০ টাকা, আলু ২৫ থেকে ৩০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ থেকে ৬৫ টাকা, পটল ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, গাজর ১২০ থেকে ১৩০ টাকা, বরবটি ৫৫ থেকে ৬০ টাকা, ফুলকপি ৭০ থেকে ৮০ টাকা, তিতকরলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, টমেটো ৭০ থেকে ৮০ টাকা।

অন্যদিকে চকবাজারে প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১১০ টাকায়, বেগুন ৬০ থেকে ৭০ টাকায়, লাউ ২৫ থেকে ৩০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, কাঁচা পেঁপে ২০ টাকা, আলু ২৫ টাকা, ঢেঁড়স ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, পটল ৫০ টাকা, গাজর ১২০ টাকা, বরবটি ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, বাঁধাকপি ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, তিতকরলা ৪০ থেকে ৫০ টাকা, টমেটো ৬০ থেকে ৬৫ টাকা।

কাজীর দেউড়ি বাজারের ক্রেতা বশিরুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, সবজি, মাছের দাম এখানে একটু বেশি। দাম বেশি হলেও এখানে আসার কারণ বাজার অনেকটা পরিচ্ছন্ন। মোটামুটি এক জায়গায় বাজারগুলো পাওয়া যায়।

কাজীর দেউড়ি বাজারে সবজি বিক্রেতা সাইফুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, এখানে দাম একটু বেশি মনে হলেও বাজার হিসেবে দাম তেমন বেশি না।

চকবাজার কাঁচাবাজারে সবজি বিক্রেতা ওসমান মিয়া বাংলানিউজকে বলেন, সবজির দাম এ বাজারে তুলনামূলক কম। গত সপ্তাহেও একই দাম ছিল।

এদিকে বাজারে প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১০৮ টাকা, চিনি ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, পেঁয়াজ ২৮ থেকে ৩৫ টাকা, প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল ৯০ থেকে ৯৫ টাকা। প্রতি কেজি পাইজার চাল ৫৪ থেকে ৫৬ টাকা, মিনিকেট চাল ৪৮ থেকে ৫০ টাকা, উৎসব চাল ৪৪ থেকে ৪৫ টাকা, পোলাও চাল (চিনিগুঁড়া) ৯০ থেকে ১০৫ টাকা, কাটারিভোগ চাল ৬৫ থেকে ৭০ টাকা। বিক্রি হচ্ছে পোলাও-বিরিয়ানির নানা উপকরণও।

বাংলাদেশ সময়: ১২১৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৮
এসকে/টিসি

কোহলি-রোহিতের সেঞ্চুরি পাত্তা দিল না ক্যারিবীয়দের
 দেশে নির্বাচন হবে কিনা সন্দেহ আছে
‘সার্টিফিকেটের চেয়ে পেছনের মানুষটা অনেক দামি’
রিকশার লাইসেন্স নবায়নে চসিকের আল্টিমেটাম
মিরাজের ঘূর্ণিতে খাদের কিনারায় জিম্বাবুয়ে
রবিঠাকুরের ‘দুই বিঘা জমি’ কবিতা নিয়ে ‘গ্রাস’
ময়মনসিংহে ডিবি’র অভিযানে গ্রেফতার ৮
প্রথম দিনে সংসদে ৬ বিল উত্থাপন
পর পর দুই উইকেট হারিয়ে কোনঠাসা জিম্বাবুয়ে
উজিরপুরে বিদ্যালয় মাঠ থেকে হাতবোমা উদ্ধার