ফের হতাশ করলেন তামিম

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: সংগৃহীত

walton

সেমিফাইনালের আগেই বিদায় নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি শুধুই আনুষ্ঠানিকতা রক্ষার। আর চলতি আসরেও এটি বাংলাদেশের শেষ ম্যাচ। এমন এক ম্যাচে জয় দিয়ে শেষ করার স্বপ্ন টাইগারদের। কিন্তু এই ম্যাচেও দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার ব্যাট হাতে ব্যর্থ।

চলতি বিশ্বকাপে তামিম ইকবালের ব্যাটিং নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। তার ব্যাটে রানের দেখা নেই সেই প্রথম ম্যাচ থেকেই। পাকিস্তানের বিপক্ষে একই ধারা বজায় রাখলেন তিনি। সৌম্য তবু ২২ বলে ২২ রান করেছেন। তামিম তো খেললেন ২১ বলে ৮ রানের হতাশাজনক এক ইনিংস। পাকিস্তানি পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদির বলে বোল্ড হয়ে ফিরেছেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

এর আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ইমাম-উল-হকের সেঞ্চুরিতে ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ৩১৫ রান সংগ্রহ করে সরফরাজ আহমেদের দল। বাংলাদেশের সেমিফাইনালের স্বপ্ন আগেই ভেঙে গেছে। শেষ চারে যেতে হলে টাইগারদের বিপক্ষে পাকিস্তানের জিততে হতো ৩১৬ রানে। কিন্তু তারা থেমে গেছে ৩১৫ রানে।

শুক্রবার (০৫ জুন) লর্ডসে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ইমাম-উল-হকের প্রথম বিশ্বকাপ সেঞ্চুরি ও বাবর আজমের ব্যাটে রানের ওঠে পাকিস্তান। সেঞ্চুরি থেকে ৪ রান দূরে দাঁড়িয়ে থাকতে সাইফউদ্দিনের এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন বাবর। তার ৯৮ বলে ৯৬ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ১১ চারে। সাজঘরে ফেরার আগে একটি রেকর্ড গড়েন তিনি। বিশ্বকাপের এক আসরে পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৭৪ রান করেন বাবর। এর আগে ১৯৯২ বিশ্বকাপে ৪৩৭ করেছিলের জাভেদ মিঁয়াদাদ। 

বাবর ব্যর্থ হলেও বিশ্বকাপে প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন ইমাম। চাচা ইনজামাম উল হকের পরে লন্ডনের লর্ডসে দ্বিতীয় পাকিস্তানি হিসেবে সেঞ্চুরি পেয়েছেন ইমাম। ইমামকে হিট উইকেটে আউট করেন মোস্তাফিজুর রহমান। ১০০ বলে করেছেন ১০০ রান করেছেন এই পাকিস্তানি ওপেনার। 

বিশ্বকাপের মঞ্চে এর আগে কোনো পাকিস্তানি দু’টি সেঞ্চুরির দেখা পাননি। ১৯৯২ বিশ্বকাপে একটি করে সেঞ্চুরি করেছিলেন রমিজ রাজা ও আমির সোহেল। ২০১৯ বিশ্বকাপে একই কাজটি করেছেন বাবর ও ইমাম। বাবর সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে।

পাকিস্তান তিনশোর্ধ্ব রান পায় ইমাদ ওয়াসিমের ব্যাটে ভর করে। মোস্তাফিজের বলে আউট হওয়ার আগে ২৬ বলে ৪৩ রান করেন তিনি। সাইফউদ্দিন নিজের তৃতীয় শিকার বানান ওয়াহ রিয়াজকে (২)। শাদাব খান (১), মোহাম্মদ আমিরকে (৮) আউট করে বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয়বারের মতো ৫ উইকেট শিকারের মাইলফলক গড়েন মোস্তাফিজ। 

এই মাইলফলক গড়ে গ্যারি গিলমোরকে ছুঁয়েছেন তিনি। ৪৪ বছর আগে বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয়বারের মতো পাঁচ উইকেট নেন এই অস্ট্রেলিয়ান বোলার। আর তামিম ইকবালের পর দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে লর্ডসের অনার্স বোর্ডে নাম লেখাচ্ছেন মোস্তাফিজ। ২০১০ সালে টেস্টে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে এই লর্ডসের অনার্স বোর্ডে নাম লেখান তামিম। লর্ডসে যারা সেঞ্চুরি অথবা পাঁচ উইকেট লাভ করে তাদেরকে সম্মান জানানোর জন্য এটি করে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড কর্তৃপক্ষ।

২০১৯ বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীদের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ওঠে এসেছে মোস্তাফিজ। ২৪ উইকেট নিয়ে শীর্ষে আছেন অস্ট্রেলিয়ার মিচেল স্টার্ক। কাটার মাস্টারের উইকেট ২০টি। এছাড়া দ্রুততম বোলারদের মধ্যে চতুর্থ হিসেবে ১০০ উইকেটের মাইলফলক গড়েছেন মোস্তাফিজ। তিনি এই এই মাইলফলক ছুঁয়েছেন ৫৪ ইনিংসে।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৬ ঘণ্টা, জুলাই ০৫, ২০১৯
এমএইচএম

লেবার পার্টির শ্যাডো কেবিনেটে টিউলিপ
ফায়ার সার্ভিসের ল্যান্ড ফোন বিকল
মিরপুর ও নারায়ণগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি ভয়ংকর
ঢাকার বাইরে করোনা রোগী বেড়েছে
এটিএম বুথগুলোর সামনে ‘সামাজিক দূরত্ব’ মানা হচ্ছে না!


ফেনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু
বগুড়ায় হতদরিদ্রদের ৫০ বস্তা চালসহ কৃষক লীগ নেতা আটক
সাহায্যের জন্য নগদ অর্থ সংগ্রহ করবেন না: মুখ্যমন্ত্রী
সিলেটে প্রবাস ফেরত যুবককে কুপিয়ে খুন
নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন বাসার ছাদে সারারাত জামাতে নামাজ আদায়