নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে টিকে রইলো পাকিস্তান

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

পাকিস্তান বনাম নিউজিল্যান্ডের ম্যাচের একটি দৃশ্য: ছবি-সংগৃহীত

walton

বার্মিংহামের এজবাস্টনে বাঁচা-মরার ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে ৬ উইকেট হারিয়েছে পাকিস্তান। কিউইদের দেওয়া ২৩৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৪৯.১ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৪১ রান করেছে সরফরাজ আহমেদের দল। এই জয়ে ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রেখেছে পাকিস্তান।

কিউইদেরে জবাব দিতে নেমে শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়া পাকিস্তানকে জয় এনে দিয়েছে বাবর আজম ও হারিস সোহেলের ব্যাট। চাপের মুখে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে বিশ্বকাপের প্রথম সেঞ্চুরি করেছেন বাবর। আর ‘ব্যাক টু ব্যাক’ ফিফটি করেছেন সোহেল। 

শুরুতে স্কোরবোর্ডে ১৯ রান তুলতে ওপেনার ফখর জামানকে (৯) সাজঘরে ফেরান ট্রেন্ট বোল্ট। দলীয় ৪৪ রানে আরেক ওপেনার ইমাম-উল-হককে (১৯) তুলে নেন লকি ফার্গুসন।

এরপর মোহাম্মদ হাফিজকে (৩২) নিয়ে ৬৬ রানের জুটি গড়েন বাবর। এই জুটি ভাঙেন কেন উইলিয়ামসন। হাফিজ ফিরলে সোহেলকে নিয়ে পাকিস্তানকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান বাবর। দু’জনে মিলে করেছেন ১২৬ রানের জুটি। শেষ দিকে দলীয় ২৩৬ রানে সোহেল (৬৮) শিকার হোন রান আউটের। ততক্ষণে অবশ্য জয়টা হাতের মুঠোয় চলে আসে পাকিস্তানের।

শেষ পযর্ন্ত সরফরাজকে (৫) সঙ্গে নিয়ে দলকে স্বস্তির জয় এনে দেন বাবর। তার ১২৭ বলে অপরাজিত ১০১ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ১১ চারে। 

এর আগে পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে দুর্দান্ত খেললেও পাকিস্তানের পেস আক্রমণের সামনে শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে কিউইরা। স্কোরবোর্ডে ৮৩ রান যোগ হতেই টপ অর্ডারের পাঁচ ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফেরে তাদের। 

প্রথম ধাক্কাটা দেন মোহাম্মদ আমির। ব্ল্যাক ক্যাপসদের দলীয় ৫ রানের মাথায় মার্টিন গাপটিলের (৫) স্ট্যাম্প ভেঙে দেন এই পেসার। সেই ধাক্কা সামলানোর আগেই শাহীন আফ্রিদি তুলে নেন কলিন মুনরোকে (১২)। 

চাপের মুখে গত দুই ম্যাচের মতো এবারও স্তম্ভ হয়ে ওঠার চেষ্টা করেন উইলিয়ামসন। তিনি এক প্রান্ত আগলে রাখলেও দ্রুত ফিরে যান দুই সতীর্থ রস টেইলর (৩) এবং টম লাথাম (১)। দু’জনকেই উইকেটরক্ষক সরফরাজের হাতে ক্যাচ বানান শাহীন। 

গত দুই ম্যাচে ‘ব্যাক টু ব্যাক’ সেঞ্চুরি করলেও এবার সফল হননি উইলিয়ামসন। জিমি নিশামের সঙ্গে চেষ্টা করেন বড় জুটি গড়তে। কিন্তু শাদাব খানের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে বসেন উইলিয়ামসন (৪১)।

এমন বিপর্যয়ের মুখে কলিন ডি গ্রান্ডহোমকে নিয়ে অনবদ্য এক ইনিংস খেলেন নিশাম। দু’জনে মিলে গড়েন ১৩২ রানের জুটি। দলীয় ২১৫ রানের মাথায় রান আউট হোন গ্রান্ডহোম (৬৪)।  

গ্রান্ডহোম ফিরলেও ইনিংসের শেষ বল পযর্ন্ত থেকে লড়াই চালিয়ে যান নিশাম। শেষ বলে ওহাব রিয়াজকে ছক্কা মেরে দলের স্কোর করেন ২৩৭ রান। নিশাম ১১২ বল খেলে অপরাজিত ছিলেন ৯৭ রানে। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ৫ চার ৩ ছক্কায়। নিশামকে সঙ্গ দেওয়া মিচেল স্যান্টনার অপরাজিত ছিলেন ৫ রানে। 

পাকিস্তানের বিপক্ষে জিতলে ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হতো নিউজিল্যান্ডের। অন্যদিকে শেষ চারের আশা বাঁচিয়ে রাখতে হলে কিউইদের বিপক্ষে জয় ছাড়া বিকল্প ছিল না সরফরাজদের সামনে। সেই লক্ষ্যে বুধবার (২৬ জুন) বিশ্বকাপের ৩৩তম ম্যাচে মুখোমুখি হয় দু’দল। 

বার্মিহামের এজবাস্টনে ম্যাচটি শুরু হওয়ার কথা বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায়। কিন্তু বৃষ্টির কবলে পড়ে টস হয় এক ঘন্টা পর। টসে জিতে পাকিস্তানকে ফিল্ডিংয়ে পাঠায় নিউজিল্যান্ড।

বাংলাদেশ সময়: ০০২৮ ঘণ্টা, জুন ২৭, ২০১৯ 
ইউবি 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯
জামিন পাননি ফারমার্স ব্যাংকের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার সোহেল
গাজীপুরে কিশোরকে শ্বাসরোধে হত্যা
সেনবাগে করোনায় পৌর অফিস সহকারীর মৃত্যু
আনন্দ নেই পরমানন্দপুরে, আছে শুধু উৎকণ্ঠা আর আতঙ্ক
করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন এসআই একরামুল


জামিন পাননি ডিআইজি মিজানের ভাগ্নে এসআই মাহমুদুল
বিভেদের ভাইরাসে জাতিকে বিভ্রান্ত না করতে কাদেরের আহ্বান
চিকিৎসা না করে রোগীদের ফিরিয়ে দিবেন না: ফরিদ মাহমুদ
তারেক রহমান করোনা আক্রান্ত নন: রিজভী
বুন্দেসলিগার ১৫ বছরের রেকর্ড ভেঙে দিলেন ১৭ বছরের মিডফিল্ডার