ভারতজুড়ে বাম সংগঠনগুলোর আইন অমান্য আন্দোলন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আগরতলা: সারা ভারতের সঙ্গে ত্রিপুরা রাজ্যেও জেল ভরো আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে বামফ্রন্ট সমর্থিত একাধিক শ্রমিক সংগঠন।

বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) ত্রিপুরা রাজ্যের প্রধান কর্মসূচিটি হয় আগরতলায়।

প্যারাডাইস চৌমুহনীতে প্রায় ৫০০ সদস্য একত্রিত হয় মিছিল করার জন্য। এ সময় পুলিশ তাদের মিছিল করতে না দিয়ে ঘেরাও করে রাখে। একপর্যায়ে আন্দোলনকারীরা মিছিল নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ জলকামান ব্যবহার করে। এতে আন্দোলনকারীরা ক্ষান্ত না হলে পুলিশ পরপর একাধিক টিয়ারসেল ছোড়ে। একপর্যায়ে লাঠিচার্জ করে আন্দোলন ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়।
 
সিপিআই (এম) ত্রিপুরা রাজ্য সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য পবিত্র কর সংবাদ মাধ্যমের কাছে অভিযোগ করেন, তারা শান্তিপূর্ণভাবে আগরতলা শহরের রাজপথে মিছিল করে জেলা শাসকের কাছে ডেপুটেশন দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু পুলিশ তাদের কিছু করতে দেয়নি। এমনকি বিনা প্ররোচনায় তাদের ওপর চড়াও হয়। পুলিশের লাঠির আঘাতে আন্দোলনকারীরা আহত হয়েছেন। এমনকি বয়ষ্ক নারীরাও তাদের হাত থেকে রেহাই পাননি।

পশ্চিম জেলার পুলিশ সুপার অজিত প্রতাপ সিং বলেন, আগে থেকে কোনো অনুমতি নেয়নি আন্দোলনকারীরা। তাই তাদের আটক করতে বাধ্য হয়েছে পুলিশ।

তিনি বলেন, পুলিশ তাদের প্রথমে বুঝিয়ে ক্ষান্ত করার চেষ্টা করে। কিন্তু তারা পুলিশকে সহযোগিতা করেনি তাই জলকামান, টিয়ারগ্যাস ও লাঠিচার্জ করতে বাধ্য হয়।

আন্দোলনকারীদের আঘাতে পুলিশকর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করেন তিনি।

এদিন সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারও আন্দোলন কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন। সাংবাদিকরা তাকে আন্দোলনের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করেন। কিন্তু তিনি মিডিয়ার সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

ত্রিপুরা রাজ্যের অন্য জেলাতেও এদিন আইন অমান্য আন্দোলন কর্মসূচি পালিত হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২২ ঘণ্টা, আগস্ট ০৯, ২০১৮
এসসিএন/আরবি/

ডিমলায় জামায়াতের শীর্ষ ৪ নেতা আটক
সাচ্ছন্দেই নৌপথে ঘরে ফিরছেন মানুষ
বাংলাদেশ-ইন্দোনেশিয়া সম্পর্ক ঐতিহাসিক ও বন্ধুত্বপূর্ণ
মন সুস্থ রাখে খেলাধুলা, বুদ্ধি বাড়ায় দাবা
লুটেরাদের কাউকে ছাড়া হবে না: ইমরান খান
বাজপেয়ীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
নরসিংদীতে ট্রেনে কাটা পড়ে কলেজছাত্রীর মৃত্যু
তিতের নতুন দলে নেই জেসুস
মঞ্চস্থ হলো ‘হাছনজানের রাজা’
ফেনীতে তৃতীয় লিঙ্গের লোকদের বাসস্থানের ব্যবস্থার আশ্বাস