ত্রিপুরায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক, সহায়তার দাবি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ত্রিপুরাজুড়ে ভয়াবহ বন্যা

আগরতলা: সম্প্রতি ত্রিপুরাজুড়ে ভয়াবহ বন্যায় রাজ্যের প্রায় প্রতিটি জেলার চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এবারের বন্যায় চাষিদের ক্ষতির পরিমাণ জানতে কাজ শুরু করেছে রাজ্য সরকারের কৃষি দফতর। 

ইতোমধ্যে কিছু জেলার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা গেছে।  

বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ঊনকোটি জেলার চাষিরা। এই জেলার মোট ১৩ হাজার ৫০ জন চাষি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১০ জুলাই) ঊনকোটি জেলা কৃষি দফতরের উপ-অধিকর্তা রতীশ মালাকার বাংলানিউজকে জানান, মোট ৯ হাজার ১১০ হেক্টর জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ৭ হাজার ১১৫ হেক্টর আউস ধান, ৬২৫ হেক্টর খারিফ ডাল শস্য, ৬১০ হেক্টর জমির ভুট্টা, ৭৬০ হেক্টর জমির তৈলবীজ ও তিল শস্য'র ক্ষতি হয়েছে।
 
তিনি আরও জানান, গ্রাম পঞ্চায়েত (জিপি) ও গ্রামস্তরের কর্মীদের দেওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতে প্রাথমিকভাবে দফতর এই রিপোর্ট তৈরি করেছে।

ঊনকোটি জেলার কৈলাসহ এলাকার চাষি প্রিয়তোষ দাস বাংলানিউজকে জানান, এবার বন্যা নিঃস্ব করে দিয়েছে। মনু নদীর বাঁধ ভেঙে পানি ঢুকে পড়েছে জমিতে। পানির সঙ্গে জমিতে ঢুকে পড়া বালির তলায় তলিয়ে গেছে একাধিক ধানক্ষেত। এখন জমির কোনো চিহ্ন নেই, শুধু বালি আর বালি। জমির বালি না সরিয়ে পরবর্তীতে চাষ করা সম্ভব নয়। 

চাষিরা জানান, সরকার থেকে যদি তাদের আর্থিক সহায়তা না দেওয়া হয় তবে পরিবার নিয়ে বেঁচে থাকা কঠিন হবে। 

তবে পঞ্চায়েত থেকে তাদের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে, দ্রুত বালি সরিয়ে জমিকে চাষযোগ্য করে দেওয়া হবে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫১ ঘণ্টা, ১০ জুলাই, ২০১৮
এসসিএন/আরআর

অক্ষম মনিবের হুইলচেয়ার ঠেলে পোষা কুকুর
উইন্ডোজ ১০: ল্যাপটপে ‘প্লাগড ইন বাট নট চার্জিং’ সমাধান
৩৯৮২ কোটি ব্যয়ে পায়রা বন্দরে প্রথম টার্মিনাল
মৌসুমি বায়ু দুর্বল, বর্ষার বর্ষণ নেই
ফিফার বিশ্বকাপ দলে নেইমার-এমবাপ্পে-হ্যাজার্ড
সিলেটে দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু
সুনামগঞ্জে সাংবাদিকের ওপর দুর্বৃত্তের হামলা
ভোট দিয়ে যাকে খুশি তাকে নির্বাচিত করবেন ভোটাররা
মিরপুরে সেলুন ব্যবসায়ী এসিড দগ্ধ
জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি ঘোষণা