দখলমুক্ত হলো রাতারগুল!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

রাতারগুলকে দখলমুক্ত করে বসিয়ে দেওয়া হয় পিলার

সিলেট: সোয়াম্প ফরেস্ট রাতারগুল। অবস্থান সিলেট নগরী থেকে প্রায় ২৬ কিলোমিটার দূরে। প্রকৃতিক সৌন্দর্যে ভরা জলার এ বন বছরের ছয় মাস থাকে পানির নিচে। বিশাল এ বনের সৌন্দর্য উপভোগ করতে বছরের সব ঋতুতেই এখানে ভিড় করেন পর্যটকরা।

বর্ষায় পানিতে টুইটম্বুর বনের রূপ যেমন উপচে পড়ে। শীতেও তেমনি অতিথি পাখির আনোগোনা মুগ্ধ করে পর্যটকদের। 

৫০৪ দশমিক ৫০ একর আয়তনের এ সোয়াম্প ফরেস্টের ১৭১ একর ভূমি এক যুগের বেশি সময় ছিল বেদখলে। পশ্চিমে রাতারগুলের ৪০ একর জায়গা উদ্ধার করা হয় আগেই। আর পুবে মহেষখেড় মৌজায় বাকি প্রায় ১৩১ একর ভূমি উদ্ধার হয় সোমবার (২০ নভেম্বর)। 

বন বিভাগ সিলেটের বিভাগীয় কর্মকর্তা এস এম মনিরুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, এদিন মহেষখেড় মৌজায় প্রায় ১৩১ একর জায়গা উদ্ধার করে ৫০ হাজার চারা ও ১৩টি পিলার লাগানো হয়েছে। 

তিনি বলেন, দখলদারদের বুঝিয়ে ভূমি উদ্ধার করা হয়। আর কোনো জায়গা বেদখল নেই। এখন ইকো ট্যুরিজমে রাতারগুল তার আপন বৈশিষ্ট ফিরে পাবে। তাছাড়া বন রক্ষায় সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটি করার উদ্যোগও নেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি। 
  
প্রায় ২৫ প্রজাতির উদ্ভিদ রয়েছে রাতারগুলে। প্রাকৃতিক বন হলেও বেত, কদম, হিজল, মুর্তাসহ নানা জাতের পানি সহিষ্ণু গাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির আরো প্রায় দেড় লক্ষাধিক গাছ রোপণ করার কথা জানান এ বন কর্মকর্তা। 

সিলেটের সীমান্তবর্তী গোয়াইনঘাট উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নে সোয়াম্প ফরেস্ট রাতারগুলের অবস্থান।

১৯৭৩ সালে ৫০৪ একর বনকে বন্যপ্রাণীর অভয়ারণ্য ঘোষণা করা হয়। এরপর উদ্ধার হওয়া ভূমি বেদখলে চলে যায়। অবশেষে সীমানা নির্ধারণক্রমে ভূমির মালিকানা নিলো বন বিভাগ। দখলমুক্ত হলো রাতরগুল!

বাংলাদেশ সময়:২১০১ ঘণ্টা, নভেম্বর ২০, ২০১৭
এনইউ/জেডএস

বিদ্যুতের খুঁটিতে আগুন, অল্পের জন্য রক্ষা পাশের ভবন
জমকালো আয়োজনে পর্দা নামলো রাশিয়া বিশ্বকাপের
সভ্য সমাজের ভিত্তি হলো আইন
বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের জুনের বেতনের চেক হস্তান্তর
সিসিকে নৌকার পক্ষে ৯ মেয়রের গণসংযোগ
তাসফিয়া হত্যা মামলায় ফের ২ দিনের রিমান্ডে আসিফ
ফাইনালের মহারণে মাঠে নেমেছে ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া
শ্রীবরদীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শিশুর মৃত্যু
স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় বিমান কর্মকর্তা কারাগারে
মেঘনায় নিখোঁজ ২ শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার