বাইরে গিয়ে খারাপ তো করিনি: মোস্তাফিজ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মোস্তাফিজুর রহমান

ঢাকা: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোস্তাফিজের অভিষেক হয়েছিলো গল্পের রাজপুত্রের মতোই। অভিষিক্ত ওয়ানডে ম্যাচে ক্রিকেটে সবসময়ের পরাশক্তি ভারতের বিপক্ষে কাটার ছুঁড়ে উইকেটের পসরা সাজিয়ে আলোড়ন তুলেছিলেন বিশ্ব ক্রিকেটের পরিমণ্ডলে।

বিস্ময়কর বোলিংয়ে তিনিই হয়ে উঠেছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের ‘এক্স ফ্যাক্টর’। ক্রিকেটাঙ্গনে এমন ব্যাটসম্যান খুব কমই খুঁজে পাওয়া যাবে যারা তার কাটার ভয়ে থরথর হননি। সব কিছুই তার দুর্দান্ত যাচ্ছিলো।

কিন্তু, হঠাৎ তার সেই উড়ন্ত ছন্দে ছেদ পড়ে। ক্যারিয়ারের এক বছর পার না হতেই ইনজুরি পেয়ে বসলো তাকে। ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডে কাউন্টি খেলতে গিয়ে কাঁধে ব্যাথা পেয়ে প্রথমবারের মতো বড় ধরনের ইনজুরিতে পড়েন মোস্তাফিজ। অস্ত্রোপচার হওয়ায় চার মাসেরও বেশি সময় তাকে থাকতে হয়েছে মাঠের বাইরে। এর পর আরও তিনটি বড় ধরনের ইনজুরিতে থাকতে হয়েছে মাঠের বাইরে।

তবে তার চলার পথ চিরতরে রুদ্ধ করে দিতে পারেনি অভিশপ্ত ইনজুরি। প্রতিটি চোটের সাথে যুদ্ধ করে ফিরেছেন মাঠের লড়াইয়ে। হয়তো তার সেই আগের ছন্দে বল ‍ছুঁড়ে উইকেটের পসরা নিয়ে ম্যাচ শেষ করতে পারছেন না। কিন্তু উইকেট তার ঝুলিতে ঠিকই আছে। সেটা দেশে কিংবা দেশের বাইরে।

ওয়ানডে ক্রিকেটে এই পর্যন্ত ২৭ টি ম্যাচ খেলে মোট ৫১টি উইকেট পেয়েছেন ফিজ। এর মধ্যে দেশের বাইরে খেলেছেন ১৩টি ম্যাচ। এই ১৩ ম্যাচের মাত্র ৩টিতে থেকেছেন উইকেটশূন্য। বিদেশবিভুঁইয়ে তার মোট উইকেট সংখ্যা ১৮টি। এমন পরিসংখ্যানই আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে তাকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলছে।

‘বিদেশের উইকেটে সবসময় চ্যালেঞ্জ থাকে। আমার এশিয়ার উইকেটে বোলিং করতে ভাল লাগে। বাইরে গিয়ে খারাপ তো করিনি। একেকজনের একেকটা দিন আসে। সেই দিনটি নিজের করে নিতে পারলে সে ভাল করতে পারবে।’

আইপিএলে গিয়ে ইনজুরিতে পড়ায় বুধবার (৪ জুলাই) থেকে শুরু হওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে জায়গা মেলেনি এই টাইগার কাটার স্পেশালিস্টের। বাঁ পায়ের বৃদ্ধাঙ্গুলের চোট সেরে ওঠায় ডাক পেয়েছেন ওয়ানডে সিরিজে। ডাক পেয়েছেন সত্যি। তবে ব্যাক অব দ্য মাইন্ডে ইনজুরি ভীতি তার ভেতরে এখনও কাজ করছে। তাই আসন্ন সিরিজে তেমন কোনো লক্ষ্য তিনি স্থির করেননি।

‘লক্ষ্য নিয়ে ক্রিকেট খেলা যায় না। এটা গায়ের জোরের খেলা না। আমার শরীর বেঁকে না বসলে সেরাটা দিতে চেষ্টা করবো।’

সেই সেরাটি কেমন? অভিষেক ম্যাচের মতো বল হাতে ঝড় তোলা? যেহেতু ক্যারিবীয় দ্বীপের কন্ডিশন পেস বোলারদের সহায়ক। না, এমন কিছুও তার ভাবনায় নেই। বরং দল যেভাবে উপকৃত হয় সেভাবেই তিনি খেলতে চেষ্টা করবেন।

‘আমি মনে করি না যে আমাকে ৫-৭টা উইকেট নিতে হবে। আমার সবসময় লক্ষ্য থাকে যেন আমাকে দিয়ে দল উপকৃত হয়। রান কম দিয়ে উইকেট কম পেলেও সমস্যা নেই। এটাই পরিকল্পনা থাকে। আমি জানি রান কম দিলে উইকেট পাবোই। ৫ টা উইকেট না হলে হবে না এমন কথা নেই।’

আগামী ২২ জুলাই গায়নায় সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও সফরকারী বাংলাদেশ। সিরিজে অংশ নিতে ১৩ জুলাই রাত ১টা ৪০ মিনিটে দেশ ছাড়বেন এই বাঁহাতি টাইগার পেস ওয়ান্ডার।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৩ ঘণ্টা, ০৪ জুলাই, ২০১৮
এইচএল/এমএমএস

পিএসজিকে উড়িয়ে দিল বায়ার্ন
নৌকা ঠেকিয়ে রাজাকার-দোসরদের ক্ষমতায় আনবেন?
শিহালা রেস্ট হাউজ নয়, আদিয়ালা জেলেই থাকতে চান মরিয়ম
মির্জাপুরে বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার
৮ দিন পানি নেই বাকলিয়ায়!
প্রকল্প বাস্তবায়নের টাকা নিয়ে নয়-ছয় করলে ব্যবস্থা
বর্ণিল আলোকসজ্জায় সজ্জিত বাকৃবি
সবুজের ডাকে সাড়া
নিখোঁজের দু’দিনপর সোনারগাঁওয়ে স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার
ওয়ানডে দিয়ে সম্মান পুনরুদ্ধারের প্রত্যাশা