রোমার বিপক্ষে সহজ জয়ে সেমির পথে বার্স‍া

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি-সংগৃহীত

চ্যাম্পিয়নস লিগে ইতালিয়ান ক্লাব রোমাকে ৪-১ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালের পথে এগিয়ে গেলো মেসি-ইনিয়েস্তা, সুয়ারেজ ও পিকেদের দল বার্সেলোনা।

ন্যু ক্যাম্পের অনুষ্ঠিত খেলার শুরু থেকেই বার্সেলোনাকে আটকানোর খুব চেষ্টা করে রোমা। কিন্তু লিওনেল মেসিকে আটকাতে গিয়ে একের পর এক ভুল করে দফরকারীরা। ফলে প্রথমার্ধের বেশি সময় বার্সার আক্রমণ ঠেকাতে ব্যস্ত ছিলো রোমার খেলোয়াড়রা। কিন্তু একাধিক আত্মঘাতী গোল আর নিজেদের ভুলের কারণে ৪-১ গোলে মাঠ ছাড়ে দলটি।

ন্যু ক্যাম্পের প্রথম লেগের আগের লিওনেল মেসিকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি দুশ্চিন্তা ছিল রোমার। দলটি মেসিকে ভালভাবে আটকিয়েও ছিলো। কিন্তু একের পর এক অন্যদের আক্রমণে অনেকটা ক্লান্ত হয়ে আত্মঘাতী গোল দেয় ডেনিয়েল ডি রোসির। ফলে ১-০তে প্রথমার্ধে মাঠ ছাড়ে দুই দল। এরপর দ্বিতীয়ার্ধ দু’দল মোট ৪টি গোল করে।

তার আগের খেলা শুরুর মাত্র ৭ মিনিটের মাথায় রোমার জালে বল প্রবেশ করলে ‘গোল’ বলে চিৎকার করে স্প্যানিশ দর্শকরা। কিন্তু সুয়ারেজের দেওয়া গোলটি অফসাইডের কারণে বাতিল হয়। এরপর ১১ মিনিটে মেসির শট আটকে দেয় রোমার গোলরক্ষক।

১৮ মিনিটে স্প্যানিশরা আরেকটি সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়ায় গোলপোস্ট। ইভান রাকিটিচের নেওয়া কর্ণার থেকে উড়ে আসা বল ক্লিয়ার করতে চেয়েছিলেন রোমা ডিফেন্ডাররা। কিন্তু ঠিকমতো করতে পারেননি। বল আবার চলে আসে রাকিটিচের কাছে। ক্রোয়েট মিডফিল্ডারের মাটি কামড়ানো শট বাঁক খেয়ে আঘাত করে পোস্টে।

তবে খেলার ৩৮ মিনিটে দেখা মেলে প্রথম গোলের। এই সময় আন্দ্রেস ইনিয়েস্তাকে বল দিয়ে বক্সের ভেতর ঢুকে পড়েছিলেন মেসি, স্প্যানিশ মিডফিল্ডার ফিরতি পাসও দিয়েছিলেন আর্জেন্টাইন অধিনায়কের দিকে। তবে মেসির পথ আটকাতে গিয়ে ইনিয়েস্তার পাস ডি রোসির পা হয়ে জড়িয়ে যায় জালে।

দ্বিতীয়ার্ধ খেলা শুরুর কয়েক মিনিটের মধ্যে ইনিয়েস্তার চমৎকার পাস রোমার এক ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে মেসি ঢুকে পড়েছিলেন বক্সে, এরপর ডান পায়ে শট নিলেও তা ঠেকিয়ে দেন আলিসন। তবে মিনিট দুয়েক পরই আবারও বার্সেলোনাকে আত্মঘাতী গোল উপহার দেয় রোমা।

তবে তৃতীয় গোলটা বার্সেলোনাই দিয়েছে। তবে মেসি কিংবা সুয়ারেজ নন, লক্ষ্যভেদ করেন জেরার্ড পিকে। অবশ্য স্প্যানিশ ডিফেন্ডারের গোলে দুই ফরোয়ার্ডের অবদানও কম নয়। মেসির চমৎকার ক্রস বক্সের ভেতর নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গোলমুখে শট করেছিলেন সুয়ারেজ, গোলরক্ষক আলিসন প্রতিহত করলেও ক্লিয়ার করতে পারেননি। তার হাত থেকে বেরিয়ে যাওয়া বল ফাঁকায় থাকা পিকে পায়ের আলতো ছোঁয়ায় জড়িয়ে যায় জালে।

এরপর ৭৯ মিনিটে এক গোল শোধ করে রোমা। বক্সের ভেতর থেকে লক্ষ্যভেদ করেন এডিন জেকো। ডিয়েগো পেরোত্তির চমৎকার ক্রস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে একেবারে গোলমুখের সামনে থেকে লক্ষ্যভেদ করেন এই স্ট্রাইকার।

তবে শেষ বাঁশি বাজার মিনিট তিনেক আগে সফরকারীদের জালে দলের হয়ে চতুর্থবার বল জড়ান লুই সুয়ারেজ। দেনিস সুয়ারেজের ক্রস রোমার এক খেলোয়াড়ের পায়ে লেগে চলে আসে উরুগুইয়ান স্ট্রাইকারের সামনে। এরপর বাঁ পায়ের প্লেসিং শটে বল জালে গড়িয়ে দেন সুয়ারেজ।

বাংলাদেশ সময়: ০৫০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৫, ২০১৮
 এমএফআই/আরএ

সিরাজগঞ্জে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে যুবক খুন
রাজধানীতে গৃহবধূ এসিড দগ্ধ
রাজধানীতে শিশুর মরদেহ উদ্ধার
আউটসোসিং বন্ধ করে সরাসরি নিয়োগের প্রস্তাব
প্রবাসীদের মধ্যে সৌদিরাই প্রথম পাবেন স্মার্টকার্ড
চৌদ্দগ্রামে ট্রাকচাপায় বিজিবি সদস্য নিহত
কার্তিক-নিতিশ জুটিতে কলকাতার বড় জয়
দুই বছরেও শেষ হয়নি এক কিলোমিটার রাস্তার কাজ
খুলনা-গাজীপুরে জয় পেতে নেতাকর্মীদের ঐক্য চায় আওয়ামী লীগ
ডিকি বার্ডের জন্ম, ডারউইনের প্রয়াণ

Alexa