শিল্পকলার ভবন নির্মাণে দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শিল্পকলার ভবন নির্মাণে দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন

খুলনা: খুলনা জেলার নবনির্মিত শিল্পকলা একাডেমি কমপ্লেক্সের ভবন নির্মাণে দুর্নীতি ও নিম্নমানের কাজের অভিযোগে মানববন্ধন করেছে সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) দুপুরে জেলা শিল্পকলার নির্মাণাধীন ভবনের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

গত ২৭ জুন ‘শিল্পকলা একাডেমি কমপ্লেক্স নির্মাণে নিম্নমানের ইট!’ ও ৩ জুলাই ‘নির্মাণকাজ শেষের আগেই ছাদ চুঁইয়ে পড়ছে পানি’ শিরোনামে বাংলানিউজে দুই পর্বের সংবাদ প্রচারিত হয়েছে। সংবাদের পর বিষয়টি নিয়ে ফুঁসে ওঠেন স্থানীয় সংস্কৃতিকর্মীরা।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- প্রবীন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মোখলেছুর রহমান বাবলু, কামরুল ইসলাম বাবলু, মল্লিক আবিদ হোসেন কবির, নিয়ামুল হোসেন কচি, মো. শরিফুল ইসলাম খান, এনামুল হক বাচ্চু, উৎপল কর্মকার, হায়দার আলী, আসিম কুমার, নাসির জবেদ প্রমুখ।

কর্মসূচিতে বক্তারা অভিযোগ করেন, শিল্পকলা একাডেমির যে ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে তাতে খুবই নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছে। যে কারণে কাজ সম্পন্ন হওয়ার আগেই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে ভবনটি। অবিলম্বে এ কাজ বন্ধ রেখে কাজটি সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করার দাবি জানিয়েছেন নেতারা।
শিল্পকলার ভবন নির্মাণ কাজএছাড়া বর্তমানে যে তদারকি কমিটি রয়েছে তাদের নিশ্চুপ থাকা ও কাজে অবহেলার জন্য নতুন করে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের দ্বারা একটি কমিটি গঠন করার দাবিও জানান সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নেতারা।

সাংষ্কৃতিক সংগঠনের নেতারা আরও বলেন, নির্ধারিত সময়ের ১৮ মাস সময় বেশি অতিবাহিত হলেও কেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির নির্বাচন দিয়ে একটি নির্বাচিত কমিটি গঠন করা হচ্ছে না।  যদি আজ একটা নির্বাচিত কমিটি থাকতো তাহলে সর্ব ক্ষেত্রে এতো সমস্যা থাকতো না, কারণ তাদের দায়বদ্ধতা থাকতো খুলনার সাধারণ মানুষ ও সংস্কৃতিসেবীদের কাছে।

মহানগরীর শেরে বাংলা রোডের পুরাতন নার্সিং ইন্সটিটিউটের জায়গায় শিল্পকলা একাডেমির আধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন কমপ্লেক্স তৈরির পরিকল্পনা নেয় সরকার। এর আগে ২০১১ সালের ৫ মার্চ খুলনার খালিশপুরের প্রভাতী স্কুল মাঠের জনসভায় অন্যান্য উন্নয়ন প্রকল্পের সাথে খুলনায় শিল্পকলা একাডেমি নির্মাণ করার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

ইতোপূর্বে দীর্ঘদিন ধরে খুলনার সংস্কৃতিকর্মী ও সাংবাদিকরা আন্দোলন করেন খুলনায় শিল্পকলা একাডেমি ভবন নির্মাণের জন্য। অবশেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনাবাসীর সেই আশাপূরণ করেন। গণপূর্ত অধিদপ্তরের কাছ থেকে বিসিটিএই ইলোরা জেভি, বেনেজীর কনস্ট্রাকশন ও আজাদ কনস্ট্রাকশন যৌথভাবে নির্মাণকাজ করছে।

২০১৬ সালের ১০ জুন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বিসিটিএই ইলোরা জেভি, বেনেজীর কনস্ট্রাকশন ও আজাদ কনস্ট্রাকশন যৌথভাবে খুলনার শিল্পকলা একাডেমির নির্মাণ কাজ পায়। শেরে বাংলা রোডে ৮১ শতক জমির ওপর দৃষ্টিনন্দন আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন শিল্পকলা একাডেমি নির্মাণের কাজ শুরু হয়। 

১২ কোটি ৭ লাখ ৪০ হাজার ২১৯ টাকা ব্যয় ধরে এ নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ৪ তলা কমপ্লেক্স নির্মাণে মোট লাগবে ৩০ কোটি টাকা। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি অনুযায়ী ১৮ মাস সময়ে অর্থাৎ ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে শিল্পকলা একাডেমির কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে কাজ শেষ করতে না পারায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বিসিটিএই ইলোরা জেভি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে সময় বৃদ্ধির আবেদন জানায়।

বাংলাদেশ সময়:  ১৫০৮ ঘণ্টা,  জুলাই ১২ , ২০১৮
এমআরএম/এমজেএফ

দাউদকান্দিতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত
লালমনিরহাটে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ধর্ষক গ্রেফতার
‘বুলেটের চেয়েও শক্তিশালী ব্যালট’
ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেলো অলিম্পিক পদকজয়ী ফিগার স্কেটারের
গোবিন্দগঞ্জে মাধ্যমিকের বই জব্দের ঘটনায় আটক ১
৩ ভাইয়ের প্রচেষ্টায় ৪ ঘণ্টায় ১ ইলিশ!
এখন সংগ্রাম জাতি হিসেবে গৌরব অর্জনের
কক্সবাজার লিংক রোডে ইসলামী ব্যাংকের ৩৩৭তম শাখা
রবীন্দ্রকথন ‘বাংলার মাটি বাংলার জল’
দু’হাত হারানো সিয়াম পেলো জিপিএ-৪