পাটুরিয়ায় পণ্যবাহী ট্রাকে জমজমাট সিরিয়াল বাণিজ্য

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা নর্থ ব্যুরো | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় মালাবাহী ট্রাক

মানিকগঞ্জ: দক্ষিণাঞ্চলের প্রায় ২১ জেলায় পণ্যবাহী ট্রাক পারাপারের অন্যতম মাধ্যম পাটুরিয়া দৌলতদিয়া নৌরুট। প্রতিদিন প্রায় প্রত্যেক নৌরুটে পারাপার হয় ছয় থেকে সাত শতাধিক ট্রাক। প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ফেরি স্বল্পতা, ঘাট পন্টুনে সমস্যা ও বাড়তি যানবাহনের চাপে প্রায়ই পাটুরিয়া ফেরি ঘাট এলাকায় যানবাহনের দীর্ঘ লাইন হয়।    

যানবাহনের জমে যাওয়া দীর্ঘ লাইন থেকে যাত্রীবাহী পরিবহন ও পচনশীল এবং জরুরি পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে নৌরুট পারাপার করা হয় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে। এতে করে নৌরুট পারাপার হতে আসা অন্য সকল পণ্যবাহী বা খালি ট্রাকগুলোকে পাটুরিয়া ফেরিঘাটের ট্রাক টার্মিনাল বা উথুলী ইন্টারসেকশন এলাকায় রাস্তার পাশে অপেক্ষা করতে হয় দীর্ঘ সময়। কখনো কখনো ওই অপেক্ষার পরিমান দুই দিন থেকে তিন দিন পর্যন্ত হয়ে যায়।

দীর্ঘ ভোগান্তির হাত থেকে রেহাই পেতে দালাল বা ভিন্ন কোনো উপায়ে যোগার করা হয় নৌরুট পারাপারের টিকিট। এতে করে পণ্যবাহী ট্রাক চালকদেরকে অতিরিক্ত গুনতে হয় তিন’শ থেকে হাজার টাকা পর্যন্ত। সিরিয়াল বাণ্যিজের কারণে অসাধু কিছু ট্রাক চালকেরা ভোগান্তি ছাড়াই নৌরুট পারাপার হতে পারলেও অপেক্ষামান ট্রাক চালকদের পড়তে হয় দীর্ঘ ভোগান্তিতে।

মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) দুপুরে পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকার ট্রাক টার্মিনালে আটকে থাকা ট্রাক চালক শরিফুল ইসলাম (কুষ্টিয়া ট ১১ ০৩১৭) বাংলানিউজকে জানান, সোমবার রাত ৯টার দিকে নৌরুট পারাপার হতে পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় এসেছেন তিনি। 

কিন্তু মঙ্গলবার দুপুর দেড়টা পর্যন্ত নৌরুট পারাপারের টিকিট নিশ্চিত করতে পারেননি তিনি। তবে ট্রাফিক পুলিশ বা দালালদের বাড়তি কিছু টাকা দিয়ে অনেক ট্রাক চালকই ফেরি পারের টিকিট নিয়ে সরাসরি নৌরুট পার হয়ে চলে যাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

মোটরসাইকেল বোঝাই ট্রাকের চালক সুজন হোসেন (কুষ্টিয়া ট ১১ ০৩৩৬) জানান, পাটুরিয়া বা দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় ভোগান্তির বিষয়ে কথা বলে কোনো লাভ নেই বরং ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান।

খুলনাগামী পণ্যবাহী ট্রাকের চালক মিজানুর রহমান (মাগুরা ট ১১০০৫২) জানান, মঙ্গলবার ভোরে তিনি পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় এসেছেন। তার এক পরিচিত দালালের মাধ্যমে টিকিট কাটার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে করে দুপুরের মধ্যেই ফেরি পারের টিকিট তিনি হাতে পাবেন বলেও মন্তব্য করেন।

অপর এক ট্রাক চালক সফিকুল ইসলাম (যশোর ড ১১ ০৭৬২) জানান, সোমবার বিকেলে পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় এসেছেন। তবে টিকিট কাউন্টারে বেশ কয়েকবার যাওয়ার পরেও তিনি কোনো টিকেট সংগ্রহ করতে পারেননি। এতে করে নৌরুট পারাপারের নির্দিষ্ট সময় সম্পর্কেও তার কোনো ধারণা নেই বলে জানান।

পাটুরিয়া ফেরিঘাট ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ মুকতার হোসেন বাংলানিউজকে জানান, জরুরি কিছু পণ্যবাহী ট্রাক অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নৌরুট পারাপার করার কারণে ট্রাক চালকদের এমন অভিযোগ। এছাড়া অন্য কিছু নয়। 

বিআইডব্লিউটিসি পাটুরিয়া কার্যালয়ের বাণিজ্য বিভাগের সহকারী মহা ব্যবস্থাপক নাসির চৌধুরী দালালদের বিষয়ে বাংলানিউজকে জানান, জরুরি ও পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে যাত্রীবাহী পরিবহনের সঙ্গে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারপার করার কারণে অন্য ট্রাক চালকদের মাঝে এমন সন্দেহ তৈরি হয়। তবে দালালদের মাধ্যমে টিকিট নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ০৩০৯ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৩, ২০১৭
বিএস 
 


উদ্ধার হয়নি পাথর বোঝাই জাহাজ এম ভি আলোর মিছিল
মাধবপুরে দুই ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই
ফের ম্যানইউর জার্সিতে ইব্রা
হবিগঞ্জে পুলিশের আভিযানে গ্রেফতার ১৭
মণিরামপুরে দিনমজুরকে গলা কেটে হত্যা

Alexa