নতুন বছরে সুস্থতায় চার অভ্যাস

লাইফস্টাইল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ব্যায়াম (ছবি: সংগৃহীত)

নতুন বছরকে বরণ করতে মোটামুটি প্রস্তুত হয়েছে সবাই। আগের বছরের ভুলত্রুটি শুধরে নিজেকে কীভাবে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায় সেই পরিকল্পনা ইতোমধ্যেই সেরে ফেলেছেন অনেকেই। 

নতুন বছরে অসুস্থতাকে গুডবাই জানিয়ে সুস্থ থাকার পরিকল্পনাটি সবার আগে করা উচিত। কারণ, সুস্থতাই তো সকল কাজের মূল। দীর্ঘসময় সুস্থতা ধরে রাখা কঠিন। 

নতুন বছরে প্রতিদিনের রুটিনে চারটি অভ্যাস আপনাকে ভালো রাখবেই, কোনো সন্দেহ নেই।

ব্যায়াম
সুস্থ থাকতে নিয়মিত শরীরচর্চা বা ব্যায়াম কতটা প্রয়োজন তা কারোরই অজানা নয়। কিন্তু কতজন তা মানেন! সময়, ধৈর্‍য্যহীনতা ও পরিকল্পনার অভাবে অনেকেরই এটি করা হয় না। নতুন বছরে এবার একটু নড়েচড়ে বসুন। শুরুতেই  প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হোন। দিনে অন্তত ৪০মিনিট ব্যায়ামের জন্যে রাখুন। প্রতিদিন একই সময় ব্যায়াম করতে হবে এর কোনো মানে নেই। যোগ ব্যায়াম বা মজার নাচ করে হলেও ৪০ মিনিট ব্যায়াম করতেই হবে এটা মাথায় রাখুন। হৃদরোগ, অস্টিওপোরেসিস, বিষণ্ণতা, উদ্বেগ থেকে দূরে তো রাখবেই সঙ্গে নতুন বছরে মানসিকভাবে সচল ও আত্মবিশ্বাসী থাকতে এই অভ্যাসটি গড়ে তুলুন।

পর্যাপ্ত ঘুম
ঘুমের কাজ কিন্তু শুধু শরীরকে শিথিল করা নয়। ভালো ঘুম মানে ভালো বিশ্রাম, যা আপনার মস্তিষ্ককে পুনরায় সচল করে। হার্ট, রক্তনালীর সুস্থতায়ও ঘুমের বিকল্প নেই। অপর্‍যাপ্ত ঘুম শরীরে নানা বিপর্‍যয় ডেকে আনে। কিডনির সমস্যা, উচ্চরক্তচাপ, ডায়াবেটিস, স্ট্রোকের কারণ হলো ভালো ঘুম না হওয়া। গেলো বছর ঘুমের সাথে যা করার করেছেন। নতুন বছরে সাবধান হোন। দিনে অন্তত সাত ঘণ্টা ঘুমানোর অভ্যাস করুন। অল্প সময়েই দেখবেন, নতুন বছরে আপনি স্বাস্থ্যবান ও সুখি মানুষদের একজন।
প্রাকৃতিক উপাদান/ছবি: সংগৃহীতপ্রাকৃতিক উপাদানে আস্থা রাখুন
দীর্ঘসময় সুস্থ থাকার জন্য শাক-সবজি, ভেষজ উপাদান আর সবুজ প্রকৃতিতে বাঁচার বিকল্প কী আর হতে পারে বলুন! আয়ুর্বেদ শাস্ত্র কিংবা বিজ্ঞানের গবেষণা, সবখানেই বলা হয়, প্রাকৃতিক উপাদান শরীরে রোগ-প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে উল্লেখযোগ্য ভাবে কাজ করে।  তাই নতুন বছর হোক সবুজের বছর। ভেষজ উপাদানে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আপনার প্রতিদিনের খাবার তালিকায় যোগ হলে, স্বাস্থ্যগত সমস্যাগুলোর মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই থাকবে না।
যথেষ্ট পানি পান করুন/ছবি: সংগৃহীতযথেষ্ট পানি পান করুন
ডাক্তার থেকে দূরে থাকতে চাইলে দিনে আট গ্লাস পানি খাওয়া জরুরি। শরীরকে সচল, কর্মতৎপর রাখতে পানি জ্বালানি হিসেবে কাজ করে। শরীরের অন্য ফাংশনগুলোর জন্যেও পানির দরকার হয়। যথেষ্ট পরিমাণ পানি ওজন কমায়, শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে, হজমে সাহায্য করে, ত্বক ও চুল সুন্দর করে, এমনকি অন্ত্রের নড়াচড়া ঠিক রাখে। এসবের সমাধান হয়তো আরো অনেকভাবেই করা যেতে পারে। কিন্তু পানি খেয়ে স্বাস্থ্য ঠিক রাখা আসলে পানির মতই সহজ কাজ। শুধু দিনে আট গ্লাস পানি খাওয়ার অভ্যাস করুন নতুন এই বছরে।

সহজ ও সাধারণ এই অভ্যাসগুলো আয়ত্তে নিয়ে সুস্থ্য ও সুন্দর কাটুক আপনার নতুন বছর।

বাংলাদেশ সময়: ০৮৩১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০১, ২০১৮
এমএসএ/এমজেএফ

দেশের উন্নয়নে শিক্ষিত ও দক্ষ জনগোষ্ঠীর বিকল্প নেই
জাজিরায় যাচ্ছে পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান
সন্তান পরীক্ষার্থী হলে কেন্দ্র সচিব হওয়া যাবে না
চতুর্থ রাউন্ডে ফেদেরার, চোটে পড়েও জোকোভিচের জয়
রাজারহাটে ছোট ভাইয়ের কাঁচির আঘাতে বড় ভাই খুন
হোসেনপুরে ট্রাক্টরচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
হবিগঞ্জে ভবন থেকে পড়ে রং মিস্ত্রির মৃত্যু
বরিশাল কলোনিতে মাদক উদ্ধারে গিয়ে মিলল অস্ত্রও
একুশ’র বর্ষপূর্তিতে মহিউদ্দিন চৌধুরীকে স্মরণ
চারঘাটে সংঘর্ষের ৫ দিন পর আহত আ’লীগ নেতার মৃত্যু




Alexa