হিজাবি নারীরা বর্ণবাদী নির্যাতনের শিকার: জেরেমি করবিন

ইসলাম ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ভিজিট মাই মসজিদ নামের এক বিশেষ অনুষ্ঠানে জেরেমি করবিন

মুসলিম নারীরা ব্রিটেনের রাস্তায় ধারাবাহিকভাবে বর্ণবাদী নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছেন লেবার পার্টির প্রধান জেরেমি করবিন। তিনি বলেন, ইসলামোফোবিয়া আমাদের সমাজে একটি বাস্তব সমস্যায় পরিণত হয়েছে।

রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) উত্তর লন্ডনে অবস্থিত ফিনসবারি পার্ক মসজিদ পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন। 

বিভিন্ন সম্প্রদায়ের সঙ্গে মুসলমানদের সেতুবন্ধন তৈরি, ইসলাম সম্পর্কে জানার সুযোগ দেওয়ার জন্য মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেন (এমসিবি) ‘ভিজিট মাই মসজিদ’ নামের এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। করবিন ওই অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। 

করবিন আরও বলেন, ‘ইসলামোফোবিয়া আমাদের সমাজে একটি বাস্তব সমস্যা। এটি আফ্রো-ক্যারিবীয় ঐতিহ্যের লোকদের বিরুদ্ধে জাতিবিদ্বেষ এবং বর্ণবাদের মতো এটিও বর্ণবাদের অন্য আরেকটি রূপ।’

তিনি বলেন, ‘আমি মুসলমান নারীদের সঙ্গে কয়েকটি মিটিং করেছি। তারা আমাকে আমাদের রাস্তায় নিয়মিতভাবে বর্ণবাদী নির্যাতনের ভয়াবহ বর্ণনা দিয়েছেন। নারীরা যদি তাদের হিজাব পরার কারণে নির্যাতনের শিকার হয়, তবে তাদের বিরুদ্ধে ভুল করা হচ্ছে এবং এটা আমাদের সবার বিরুদ্ধে ভুল।’

মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেন (এমসিবি) কর্তৃক আয়োজিত ‘ভিজিট মাই মসজিদ’ অনুষ্ঠানে প্রায় ২শ’ ভিন্ন ধর্মালম্বী অংশ নেন। ইসলাম সম্পর্কে অহেতুক ও কাল্পনিক ধারণা দূর করার প্রচেষ্টা হিসেবে ইনভারনেস থেকে কর্নওয়াল পর্যন্ত সব মসজিদে অন্য ধর্মের মানুষকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। 
ভিজিট মাই মসজিদ অনুষ্ঠানে প্রায় ২শ’ ভিন্ন ধর্মালম্বী অংশ নেন
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ধর্মের অনুসারীরা অংশ নেন। ইসলাম নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করেন। তারা কোরআনের অর্থ পড়েন, হিজাব প্রদর্শনী ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং খাবারে অংশ নেন। 

গত জুন মাসে সন্ত্রাসী হামলার পর ফিনসবারি পার্ক মসজিদ এবং নিকটবর্তী মুসলিম কল্যাণ কেন্দ্রের জন্য এটি প্রথম ‘ওপেন ডে’র আয়োজন করা হয়। ওই হামলায় ড্যারেন ওসবর্ন নামে এক ব্যক্তি এক দল মুসল্লির ওপর তার ভ্যান চালিয়ে দেন। এতে এক মুসল্লি নিহত হয় এবং ১২ জন আহত হয়। 

ওই হামলার দায়ে চলতি মাসের শুরুতে ওসবার্নকে ৪৩ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বিচারক তার রায়ে বলেন, ‘মুসলমানদের প্রতি ঘৃণার মতাদর্শ’ দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে ওসবার্ন ওই হামলা চালিয়েছে। 

মুসলিম কল্যাণ কেন্দ্রের ইমাম মোহাম্মদ মাহমুদ বলেন, ‘যদিও মুসলিম কল্যাণ কেন্দ্র ৩০ বছরের বেশি সময ধরে ‘ওপেন ডে’র আয়োজন করে আসছে। তবুও দেশব্যাপী সমন্বয় সাধন করা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কারণ, বেশিরভাগ লোকের মধ্যেই মসজিদ নিয়ে একটি নেতিবাচক ধারণা রয়েছে।’

সম্প্রতি এমসিবির পক্ষ থেকে পরিচালিত গবেষণায় দেখা গেছে, ৯০ শতাংশ ব্রিটিশ কখনোই কোনো মসজিদ পরিদর্শন করেননি এবং চারজনের মধ্যে একজন বলেছিলেন যে তারা কোনো মুসলমান সম্পর্কে জানে না। 

-দ্য গার্ডিয়ান অবলম্বনে

ইসলাম বিভাগে লেখা পাঠাতে মেইল করুন: bn24.islam@gmail.com

বাংলাদেশ সময়: ১১৩৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৮
এমএইউ/

চকবাজার পানির ট্যাংকিতে পড়ে নারীর মৃত্যু
কেসিসি নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ চলছে
ফেসবুকের পোস্ট উধাওয়ের অভিযোগ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর
পাবনায় নিজ বাড়ির ছাদে ছাত্রলীগ কর্মীর গলা কাটা মরদেহ
আবারও মঞ্চ মাতালেন জেমস
দুঃস্বপ্নের স্মৃতি ভুলতে চায় জঙ্গি আবুর পরিবার
ভাঙন আতঙ্কে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন উপকূলের মানুষ 
পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশ দৃঢ় প্রতিজ্ঞ
আসছে বর্ষায় মিরপুরে মহাবিপদ সংকেত!
অভাবের সংসারে নকল পা কেনা বিলাসিতা!

Alexa