থাই গুহায় আটকে পড়া ফুটবলারদের পরিচয়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

এক ফ্রেমে কিশোর ফুটবল টিম ও তাদের কোচ

থাইল্যান্ডের গভীর অন্ধকার গুহায় আটকে পড়া ১২ খুদে ফুটবলার ও তাদের কোচকে নিয়ে এখন সবাই উদ্বিগ্ন। দুশ্চিন্তা উঁকি দিচ্ছে তাদের সবার ফিরে আসার নিশ্চয়তা নিয়ে, নিরাপদ উদ্ধার কার্যক্রম নিয়েও দুর্ভাবনার কমতি নেই। যদিও তাদের বের করে আনার জন্য নিরলস কাজ করছে পাঁচ সদস্যের এলিট নেভি সিল ও ১৩ বিশেষ ডুবুরি। এরমধ্যে কোচসহ চারজনকে উদ্ধারও করা হয়েছে। আটকে আছে আরও নয়জন। তাদেরও নিরাপদে বের করে আনার জন্য তৎপর উদ্ধারকারী বাহিনী।

উত্তরাঞ্চলের চিয়াং রাইয়ের গুহায় আটকে পড়া এই কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচের নিরাপদ প্রত্যাবর্তনের জন্য এখন প্রার্থনারত পুরো থাইল্যান্ডসহ বিশ্ববাসী। আটকে পড়া ফুটবলার এবং তাদের পরিবারের দিকেই এখন সহানুভূতির দৃষ্টি সবার। 

** থাই গুহায় আটকে আরও ৯, উদ্ধারকাজ ফের সকাল থেকে
** থাই গুহায় যেভাবে চলছে উদ্ধার কার্যক্রম

গত ২৩ জুন বার্ষিক ভ্রমণে ওই পাহাড়ি এলাকায় গিয়ে হারিয়ে যায় ১১-১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ। পরে ২ জুলাই উত্তরাঞ্চলের চিয়াং রাই প্রদেশের থাম লুয়াং গুহায় তাদের সন্ধান পায় ব্রিটিশ ও থাই ডুবুরি দল। রোববার (৮ জুলাই) স্থানীয় সময় সকাল ১০টা থেকে শুরু হয় উদ্ধার অভিযান। রাত ৯টায় তা স্থগিত ঘোষণা করা হয়। সোমবার (৯ জুলাই) সকাল থেকে আবার কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা। 

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী এ ফুটবলাররা ‘ওয়াইল্ড বোয়ার্স’ নামে একটি ফুটবল টিমে খেলতো। পড়তো প্রদেশের বিভিন্ন স্কুলে। জানা যাক তাদের পরিচয় ও গুহায় আটকে পড়ার পর তৎপরতা।

চানিন ভিবনরুনগ্রুয়াং: এগারো বছর বয়সী চানিন ভিবনরুনগ্রুয়াংয়ের ডাক নাম তিতান। সে আটকে পড়া ফুটবল টিমের সবচেয়ে কম বয়সী ফুটবলার। সাত বছর বয়স থেকে ফুটবল খেলা শুরু করে চানিন। গুহায় আটকে পড়ার পর চানিন তার মা-বাবার উদ্দেশে একটি আবেগঘন চিঠি লেখে। সিটি থাইল্যান্ডের নৌবাহিনীর ফেসবুক পেজে প্রকাশ হয়েছে। চিঠিতে চানিন মা-বাবাকে বলে, ‘আমাকে নিয়ে চিন্তা করো না, আমি ভালো আছি। পি ইয়দকে (প্রতিবেশী) আমার জন্য চিকেন ফ্রাইড নিতে বলো, প্লিজ। তোমাদের সবাইকে ভালোবাসি।’

পানুমাস সাংদি: তেরো বছর বয়সী পানুমাস সাংদি’র ডাকনাম মিগ। নৌবাহিনীর ফেসবুক পেজে প্রকাশিত চিঠিতে মিগ বাবা-মাকে লিখেছে, ‘নৌ-বাহিনীর সদস্যরা আমার ভালো যত্ন নিচ্ছে। চিন্তা করো না।’

দুগানপেত প্রমতেপ: দুগানপেত প্রমতেপের বয়স তেরো বছর। ডাক নাম দম। সে ফুটবল টিমের অধিনায়ক। 

সামপং জাইওয়ং: সামপং জাইওয়ংয়ের বয়সও তেরো বছর। ডাকনাম পং। তার স্বপ্ন বড় হয়ে থাইল্যান্ড জাতীয় দলে খেলবে। 

মংকল বুনিয়াম: মংকল বুনিয়ামের বয়সও তেরো বছর। তার ডাকনাম মার্ক। স্কুলের শিক্ষকরা তাকে খুবই দায়িত্ববান ও ভালো ছেলে হিসেবে দেখেন। 

নাত্তাউত তাকামরং: নাত্তাউত তাকামরংয়ের বয়স চৌদ্দ বছর। তার ডাকনাম টির্ন। টির্ন চিঠিতে তারা বাবা-মা’কে দুঃশ্চিন্তা করতে মানা করেছে।

একারাত ওংসুকচান: একারাত ওংসুকচানের বয়স চৌদ্দ বছর। তার ডাকনাম বিউ। সে চিঠিতে মা’কে কথা দিয়েছে, উদ্ধার হওয়ার পর নিজেদের দোকানের কাজে মাকে সাহায্য করবে। 

আদুল সামওন: আদুল সামওনের বয়সও চৌদ্দ বছর। সে একটি ভলিবল টিমেরও সদস্য। ভলিবলের দলটি উত্তর থাইল্যান্ডের একটি টুর্নামেন্টের রানার্সআপ। 

প্রাজাক সুথাম: প্রাজাক সুথামের বয়স পনেরো বছর। ডাকনাম নোট। পরিবারের সদস্যরা বলছে, প্রাজাক সুথাম খুব শান্ত, বুদ্ধিমান ছেলে।

পিপাত ফো: পিপাত ফোয়ের বয়স পনেরো বছর। তার ডাকনাম নিক। সে চিঠিতে বাবা-মাকে লিখেছে, উদ্ধার হওয়ার পর বাবা-মা যেন তাকে বারবিকউ করতে নিয়ে যায়।

পনচাই কামলুয়াং: পনচাই কামলুয়াংয়ের বয়স ১৬ বছর। তার ডাকনাম তিই। সে বাবা-মাকে লিখেছে, ‘চিন্তা করো না, আমি ভালো আছি।’

পিরাপাত সোমপিয়াংজাই: পিরাপাত সোমপিয়াংজাই তার জন্মদিনেই নিখোঁজ হয়ে যায়। এ বছর  সে ১৬ থেকে ১৭ বছরে পা রেখেছে। তার ডাক নাইট। তার বাবা-মায়েরা ছেলের উদ্দেশে চিঠিতে লিখেছে, সে ফিরে আসার পর জন্মদিনের পার্টি হবে। এজন্য তারা অপেক্ষা করছে। 

একাপোল চানতাওং: একাপোল চানতাওং ফুটবল দলটির কোচ। তার বয়স পঁচিশ বছর। ডাকনাম এক। প্রকাশিত চিঠিতে তিনি খুদে ফুটবলারদের এই বিপদে পড়ার জন্য বাবা-মায়ের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। 

বাংলাদেশ সময়: ১১০৬ ঘণ্টা, জুলাই ০৯, ২০১৮
এএইচ/এইচএ/

যেমন ছিল ‘ওৎজি’ মানবের খাবার
বদরগঞ্জের শোলার খোঁজে দূর-দূরান্তের মালিরা
যে শহরে কোটি টাকা আয় করেও গরিব!
তদবিরে বাড়তি চাল বরাদ্দ মিললেও মেলেনি বরাদ্দপত্র
বছরে ৫০ কোটি মেট্রিকটন ক্ষতিকর পোকামাকড় খায় পাখি
যেভাবে চালু করবেন জিমেইলের স্মার্ট কম্পোজ
জয়পুরহাটে ২৫ কোটি টাকা ব্যায়ে বটতলী সেতুর নির্মাণ শুরু
ত্রিপুরায় নকল পণ্যের কারখানায় পুলিশের অভিযান
বরগুনায় ইয়াবাসহ যুবক আটক
ত্রিপুরার পর্যটনকেন্দ্রগুলো বিশ্বমানের করার নির্দেশ