গুহায় আরও মাসখানেক থাকতে হতে পারে খুদে ফুটবলারদের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

গুহার ভেতরে আটকে পড়া শিশুরা

থাইল্যান্ডের গুহায় নিখোঁজ খুদে ফুটবলার ও তাদের কোচ জীবিত রয়েছেন। তবে গুহা থেকে তাদের বের করে আনতে এখনও শঙ্কা থেকে গেছে। উদ্ধার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তাদের প্রত্যেককে ডুবসাঁতার শিখতে হবে অন্যথায় বন্যা শেষ না হওয়া পর্যন্ত প্রায় মাসখানেক গুহার ভেতর থাকতে হবে।

**থাইল্যান্ডে নিখোঁজ ফুটবল দলের সন্ধান, সবাই জীবিত

সোমবার (২ জুলাই) নিখোঁজ ফুটবলারদের সন্ধান পাওয়া যায়। এর আগে তারা নয়দিন ধরে নিখোঁজ ছিলো।

উদ্ধারকারীরা এখন বন্যার পানি বৃদ্ধির মধ্যে ওই ফুটবল দলকে পর্যাপ্ত সহায়তা দিতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। উদ্ধারকাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত সামরিক সদস্যরা বলছেন, পরবর্তী কয়েক ঘণ্টার জন্য তাদের খাবার সরবারহ করা হয়েছে।

সোমবার রাতে ব্রিটিশ ও থাই ডুবুরি দল ফুটবল দলটির সন্ধান পায়। তাদের সন্ধানের পর থাইল্যান্ডের নৌবাহিনীর বিশেষ ফোর্স একটি ভিডিও ফুটেজ ফেসবুকে আপলোড করে। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, টর্চ লাইটের আলোতে ফুটবল দলের সদস্যদের দেখা যাচ্ছে। তারা পানির মধ্যে উঁচু জায়গায় বসে আছে। তারা ডুবুরিদের সঙ্গে কথা বলছে।

নিখোঁজ ফুটবল দলের সদস্যরা ডুবুরিদের জানিয়েছে, তারা খুবই ক্ষুধার্ত। তারা ডুবুরিদলকে জিজ্ঞেস করেছে, কতদিন ধরে গুহার ভেতর রয়েছে, কবে গুহার ভেতর থেকে বাইরে বের হতে পারবে। তবে ডুবুরি দল তাদের আশ্বস্ত করেছে, তাদের অপেক্ষা করতে হবে এবং তাদের জন্য আরও লোক আসবে। প্রতি উত্তরে এক খুদে ফুটবলার বলেছে, ‘ওহ, আগামীকাল দেখা হবে।’

উদ্ধারকারীরা বলছেন, থাইল্যান্ডের থাম লুয়াং গুহা প্রত্যেক বছর বর্ষায় ভেসে যায়। সাধারণত সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এর স্থায়িত্ব থাকে। উদ্ধারকারী সদস্যদের মতে, গুহায় আটকা পড়া বাচ্চাদের এর আগে বের করতে হলে, অবশ্যই ডুবসাঁতার শিখতে হবে এবং দক্ষ হতে হবে।

কিন্তু বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলছেন, কর্দমাক্ত, অদৃশ্যমান গুহাটির ভেতর থেকে অভিজ্ঞতাশূন্য কিশোরদের ডুবসাঁতার দিয়ে বেরিয়ে আসা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ কাজ হবে। কৃত্রিম উপায়ে পানির স্তর কমিয়ে নিয়ে আসাও খুব সফল কিছু হবে না।

তারা বলছেন, স্বাভাবিক নিয়মে পানির স্তর হ্রাস হওয়ার জন্য আরও মাসখানেক সময় লাগবে। এজন্য তাদের ধারাবাহিকভাবে খাদ্যসহ অন্য প্রয়োজনীয় জিনিস সরবরাহ করতে হবে।

তারা জানিয়েছেন, ডাক্তাররা গুহায় আটকদের স্বাস্থ্য অবস্থা পরীক্ষার জন্য যাবেন। সম্ভাব্য আহতদের প্রয়োজনীয় সেবা দেওয়া হবে।

গুহায় আটকে পড়া সবাই একটি ফুটবল দলের সদস্য। তাদের মধ্যে ১২ জন ছেলের মধ্যে সবচেয়ে কমবয়সী সদস্যটির বয়স ১১ বছর। এছাড়া তাদের সঙ্গে ২৫ বছর বয়সী একজন প্রশিক্ষকও আটকা পড়েছেন। তারা তাদের বার্ষিক ভ্রমণ ও ফিল্ড ট্রিপের জন্য বেরিয়েছিলেন।

এদিকে নিখোঁজ সদস্যদের সন্ধানের খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যরা আনন্দ প্রকাশ করেছেন। আটক ফুটবলারদের এক স্বজন বলেছেন, আমি খুবই খুশি, এটা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না। আমি তাদের শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ্য অবস্থায় ফেরত পেতে চাই।

বাংলাদেশ সময়: ১২১৪ ঘণ্টা, জুলাই ০৩, ২০১৮
এএইচ/আরআর

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশের পাশে রয়েছে মালয়েশিয়া
মাদারীপুরে ইউপি চেয়ারম্যানকে হাতুড়ি পেটা
মধুপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত গৃহবধুর মৃত্যু
প্রথম ফিফা বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত
প্রয়োজনীয় অর্থ পাবেন ধনু, কন্যার মানসিক চিন্তা
ফের ইয়াবাসহ পুলিশের বরখাস্ত এএসআই গ্রেফতার
স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ নারী দল
‘দশম সংসদ অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে’
কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন সমর চৌধুরী
যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশে ফেসবুক ডাউন