বালিকা হ্যান্ডবলে সেরা রাজশাহী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ যুব গেমসের চূড়ান্ত পর্বে বালিকা হ্যান্ডবলে সেরা হয়েছে রাজশাহী বিভাগ। মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) ক্যাপ্টেন (অব.) এম মনসুর আলী জাতীয় হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ফাইনালে রাজশাহীর মেয়েরা ২২-১৭ গোলে ময়মনসিংহ বিভাগকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতে নেয়।

প্রথমার্ধে বিজয়ীরা ১৪-৫ গোলে এগিয়ে ছিল। রাজশাহীর পূর্ণিমা রানী সর্বোচ্চ ৮টি এবং শাহনাজ ৬টি গোল করেন। রৌপ্যপদক জয়ী ময়মনসিংহের আল্পনা ৭ ও মিষ্টি ৫টি গোল করেন।

একই ভেন্যুতে বুধবার (১৩ মার্চ) বালক বিভাগের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে। এ খেলার মধ্য দিয়েই শেষ হবে বাংলাদেশ যুব গেমসের হ্যান্ডবল ডিসিপ্লিনের খেলা।

ফাইনালে রাজশাহীর হয়ে সর্বোচ্চ গোল করা পূর্ণিমা রানী দারুণ উচ্ছ্বসিত নিজ দলের সাফল্যে। তিনি হতে চান জাতীয় তারকা ডালিয়া আক্তারের মতো হ্যান্ডবল খেলোয়াড়। দেশকে উপহার দিতে চান স্বর্ণ।

পূর্ণিমা বলেন, ‘আমার বোনকে দেখে আমি হ্যান্ডবল খেলা শুরু করি। ছয় বছর ধরে খেলছি। নিজেকে ডালিয়া আপার মতো একজন খেলোয়াড় হিসেবে তৈরি করতে চাই। সবাইকে নিয়ে বাংলাদেশকে স্বর্ণ জেতাতে চাই।’

একজন মেয়ে হয়ে হ্যান্ডবল খেলার পথে পরিবার থেকে সবচেয়ে বেশি সমর্থন পেয়ে আসছেন পূর্ণিমা। তার কথায়, ‘আমার পরিবার থেকে আমি সব সময় সমর্থন পাই। পরিবারের সবাই আমাকে উদ্বুদ্ধ করেন খেলা চালিয়ে নিতে। এটা আমার জন্য সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা।’

এদিকে, ফাইনালের আগে বালিকাদের তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হয় ঢাকা ও খুলনা বিভাগ। তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে খুলনা ১৬-১৪ গোলে ঢাকা বিভাগকে হারিয়ে ব্রোঞ্জপদক জিতেছে।

বালকদের তৃতীয় স্থান নির্ধারণীতে ব্রোঞ্জ জয়ের লড়াইয়ে মুখোমুখি হয় বরিশাল ও ঢাকা বিভাগ। এই ম্যাচে ঢাকার বিপক্ষে দাঁড়াতেই পারেনি বরিশাল। ২৭-১০ গোলের বড় ব্যবধানে হার মানে বরিশাল।

বাংলাদেশ সময়: ২০১০ ঘণ্টা, ১৩ মার্চ ২০১৮
এইচএল/এমআরএম

ফাইনালে সেই পেনাল্টির সিদ্ধান্ত ঘিরে বিতর্ক
বিশ্বকাপজয়ে প্যারিস যেন উৎসবের নগরী 
বিশ্বকাপের সেরা একাদশে এমবাপ্পে-মদ্রিচ-হ্যাজার্ডরা
প্রেসিডেন্ট কোলিন্দের সান্ত্বনা পেলেন মদ্রিচ
এবার অপেক্ষা কাতার বিশ্বকাপের
এক নজরে রাশিয়া বিশ্বকাপ
বিশ্বকাপ জয় বিশ্বাস হচ্ছে না গ্রিজম্যানের
‘গোল্ডেন গ্লাভস’ থিবাউ কুরতোয়ার
বিশ্বকাপে কে কত পেলো?
পেলের ৬০ বছরের রেকর্ডভাঙা এমবাপ্পেই ‘সেরা উদীয়মান’