ওড়ার জন্য তৈরি হচ্ছে বিশ্বের বৃহত্তম প্লেন

ফিচার ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বিশ্বের বৃহত্তম প্লেন

ঢাকা: আকাশে ওড়ার জন্য তৈরি হচ্ছে বিশ্বের বৃহত্তম প্লেন। সম্প্রতি এ প্লেনটির ট্যাক্সি টেস্টিং (রানওয়েতে চলাচলের পরীক্ষা) সম্পন্ন করলেন এর নির্মাতারা।

একটি ফুটবল মাঠের চেয়ে বড় লম্বা পাখা (১১৭ মিটার) বিশিষ্ট প্লেনটির নাম স্ট্র্যাটোলাঞ্চ। প্লেনটির মূল কাঠামো দু’টি। প্রত্যেক কাঠামোর জন্য রয়েছে আলাদা আলাদা ককপিট। পরিকল্পনা মোতাবেক ২০১৯ সালের মধ্যেই আকাশে উড়বে ছয় ইঞ্জিন বিশিষ্ট প্লেনটি।

স্ট্র্যাটোলাঞ্চের ট্যাক্সি টেস্টিং সম্পন্ন হয় যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় অবস্থিত ‘মোজেভ এয়ার অ্যান্ড স্পেস পোর্টে’র রানওয়েতে। দীর্ঘ রানওয়েতে ৪০ নট (৭৪ কিমি/ঘণ্টা) গতিবেগে ছোটানো হয় প্লেনটি। এটি ছিল এর দ্বিতীয় ট্যাক্সি টেস্টিং। ২০১৭’র ডিসেম্বরে প্রথম ট্যাক্সি টেস্টিংয়ে ২৫ নট (৪৫ কিমি/ঘণ্টা) গতিবেগে ছোটানো হয়েছিল অদ্ভুত আকৃতির এই স্ট্র্যাটোলাঞ্চকে।

 বিশ্বের বৃহত্তম প্লেনমাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা পল অ্যালেনের দূরদর্শিতার ফলাফল এ প্লেনটি। তিনি চেয়েছিলেন বিভিন্ন মালামাল বর্তমান প্রযুক্তির চাইতেও আরও সহজ উপায়ে এবং কম খরচে মহাকাশে পাঠানোর উপায় তৈরি করতে। সব পরীক্ষা-নিরীক্ষা সফল হলে স্ট্র্যাটোলাঞ্চকে দিয়ে তা সম্ভব হবে।

প্লেনটিকে আকাশে ওড়ানোর সময় তিন সদস্য বিশিষ্ট দল এর ডান পাশের ককপিটে বসবেন। এ দলে থাকবেন একজন পাইলট, একজন কো-পাইলট ও একজন ফ্লাইট ইঞ্জিনিয়ার। এর বাম পাশের কাঠামোটিতে ককপিট সদৃশ জানালা থাকলেও তা ফাঁকাই থাকবে।

কোনো কার্গো ছাড়াই প্লেনটির ওজন প্রায় ২ দশমিক ২ লাখ কেজি। আর তা বহন করতে পারবে ৫ দশমিক ৮ লাখ কেজির কার্গো। ২৮ চাকা বিশিষ্ট প্লেনটি ব্যবহার করবে বোয়িং ৭৪৭ এয়ারক্রাফটের জন্য ব্যবহৃত ইঞ্জিন।

 বিশ্বের বৃহত্তম প্লেননির্মাতারা জানান, মহাকাশে রকেট পাঠাতে বিপুল পরিমাণে জ্বালানি খরচ হয়। এ জ্বালানি খরচটা অনেক কমিয়ে আনতে পারবে স্ট্র্যাটোলাঞ্চ।

স্ট্র্যাটোলাঞ্চ প্রোজেক্টের প্রোগ্রাম ম্যানেজার জর্জ বাগ একটি বিবৃতিতে বলেন, আজ আমাদের দল সফলতার পথে আরও একধাপ এগিয়ে গেছে। প্লেনটির স্টেয়ারিং গিয়ার, ব্রেক সিস্টেম ও দিক নির্দেশনামূলক ফাংশনগুলো সফলভাবে কাজ করেছে।

এ দৈত্যাকার প্লেনটির নির্মাতা পল অ্যালেনের মহাকাশ সংস্থা ‘স্ট্র্যাটোলাঞ্চ সিস্টেম’। আর তা মহাকাশযাত্রাকে বাণিজ্যিক রূপ দানের লক্ষ্যে কাজ করা এলন মাস্কের ‘স্পেস এক্স’ ও জেফ বেজোসের ‘ব্লু অরিজিন’কে প্রতিযোগিতায় টপকে যাওয়ার যথেষ্ট যোগ্যতা রাখে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

বাংলাদেশ সময়: ০১৫৮ ঘণ্টা, মার্চ ০১, ২০১৮
এনএইচটি/এএ

যে শহর দাপিয়ে বেড়ায় আদুরে বিড়াল!
নাট্যব্যক্তিত্ব শম্ভু মিত্রের জন্ম
পল্লবীতে রিজার্ভ ট্যাংক বিস্ফোরণে দগ্ধ ৯
ট্রাক ভর্তি গরু ফেরত যাচ্ছে
ঈদের আমেজ আসামিদের ‘অস্থায়ী আবাসেও’
আনোয়ারায় প্রবাসী সিআইপির বিনামূল্যের চিকিৎসা ক্যাম্প
সাড়ে ১৮ লাখ টাকায় বিক্রি হলো ‘রাজা বাবু’
শেষ দিনে গরুর বাজারে জমজমাট বিকিকিনি
ইচ্ছে থাকলেও হাট ছাড়তে পারছেন না ব্যবসায়ীরা
বি. চৌধুরী ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন ২৩ আগস্ট