ঘটনাস্থলে না থেকেই গুজব ছড়ান নওশাবা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

র‍্যাবের হাতে আটক অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদ

ঢাকা: ঘটনাস্থলে উপস্থিত না থাকলেও রুদ্র নামের এক ছেলের প্ররোচনায় ফেসবুক লাইভে গুজব ছড়ানোর কথা স্বীকার করেছেন র‍্যাবের হাতে আটক অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদ।

শনিবার (০৪ আগস্ট) দিনগত রাত একটার দিকে র‍্যাব-১ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নওশাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে এ কথা জানান র‍্যাবের লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান।

মুফতি মাহমুদ খান বলেন, পুরাতন অনেক ঘটনা আছে, শনিবার দুপুরে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের বিষয়ে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। নওশাবা নামের এক ব্যক্তির ফেসবুক আইডি থেকে ভিডিওটি ছড়ানো হয়েছে নজরে আসলে আমরা বিষয়টি নিয়ে কাজ শুরু করি। পরে সনাক্ত করে উত্তরার একটি শ্যুটিং স্পট থেকে নওশাবাকে আটক করে র‍্যাব-১ কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।

তিনি বলেন, ভিডিওতে যেভাবে শিক্ষার্থীদের চোখ উপড়ে ফেলা এবং শিক্ষার্থী মৃত্যুর কথা বলা হয়েছে এতে মনে হয়েছে নওশাবা ঘটনাস্থল জিগাতলায় ছিলেন। কিন্তু সে উত্তরার একটি শ্যুটিং স্পট থেকেই ফেসবুক লাইভে গুজবটি ছড়িয়ে দেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি গুজবের বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

নওশাবাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে তিনি আরো জানান, রুদ্র নামের স্কুল পড়ুয়া এক ছেলের কাছ থেকে তথ্য পেয়ে তা ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন তিনি। গত ৩ আগস্ট শাহবাগে রুদ্রর সঙ্গে নওশাবার পরিচয় হয়। তারপর থেকে আন্দোলনের বিষয়ে উভয়ের মধ্যে যোগাযোগ হতো।

এ ঘটনার সঙ্গে আর কারা জড়িত রয়েছে সে বিষয়ে জানতে তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। গুজব ছড়ানোর বিষয়ে অপরাধ বিবেচনায় তার বিরুদ্ধে একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে র‍্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, একটি মহল গুজব ছড়িয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে। গুজব ছড়ানোর বিষয়ে তারা এমন ব্যক্তিকে সিলেক্ট করছে, যেন তার কথা মানুষের কাছে সত্য মনে হয়। বিভিন্ন গুজবের বিষয়ে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে এবং আমাদের কাছে তথ্য আছে। যারা এসব করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

বিএনপি নেতা আমির খসরুর ফোনালাপের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, শুনেছি তার বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। সে অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে শনিবার (৪ আগস্ট) রাতে অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদকে আটক করে র‍্যাব।

শনিবার বিকেলে ফেসবুক লাইভে কাজী নওশাবা দাবি করেন, রাজধানীর জিগাতলায় একজন শিক্ষার্থীর চোখ তুলে ফেলা ও চার শিক্ষার্থীকে মেরে ফেলা হয়েছে। তবে খোঁজ নিয়ে তার এসব তথ্যের কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি। একারণে বিতর্ক সৃষ্টি হয়।
 
ফেসবুক লাইভে নওশাবা বলেন, জিগাতলায় আমাদের ছোট ভাইদের (শিক্ষার্থী ইঙ্গিত করে) একজনের চোখ তুলে ফেলা ও দুইজনকে মেরে ফেলা হয়েছে। একটু আগে তাদের অ্যাটাক করা হয়েছে। ছাত্রলীগের ছেলেরা সেটি করেছে। প্লিজ-প্লিজ ওদেরকে বাঁচান। তারা জিগাতলায় আছে। আপনারা এখনই রাস্তায় নামবেন ও আপনাদের বাচ্চাদের নিরাপদ জায়গায় নিয়ে যাবেন, এটা আমার রিকোয়েস্ট। বাচ্চাগুলো নিরাপত্তাহীনতায় আছে। আপনারা প্লিজ কিছু একটা করেন। আপনারা সবাই একসাথে হোন। আমি এ দেশের মানুষ, এদেশের নাগরিক হিসেবে আপনাদের কাছে রিকোয়েস্ট করছি।

বাংলাদেশ সময়: ০২১৮ ঘণ্টা, আগস্ট ০৫, ২০১৮
পিএম/এসআইএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ছাত্র বিক্ষোভ
কষ্ট করলেও ঈদে আশা পূরণ চায় পথশিশুরা
ভুল চিকিৎসায় চাকরিচ্যুত নারী দিচ্ছেন মা ও শিশুসেবা!
‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক তারুণ্যের শোকগাঁথা
এবার রাজনীতির মাঠে গৌতম গম্ভীর!
আটপাড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু
সদরঘাটে এখনও লাগেনি ঈদের আমেজ
কালকিনিতে দোকানে মাইক্রোবাস, শিশু নিহত 
নওগাঁয় ডিবির ভুয়া সদস্য আটক
লন্ডনের ভার্সিটিতে বাংলাদেশি অর্নার কীর্তি
‘আ.লীগ আবারও ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চাইছে’