জাতীয় পরিবেশ আলোকচিত্র উৎসবের পুরস্কার বিতরণ

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: জাতীয় পরিবেশ আলোকচিত্র উৎসব-২০১৮ এর পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।  

সোমবার (৩০ জুলাই) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেওয়া হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবেশ সংসদ এই উৎসবের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে পরিবেশ সংসদের সভাপতি মোহাম্মদ হোসাইনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ। অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মাদ সামাদ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের উপদেষ্টা ও বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি প্রক্টর ও পরিবেশ সংসদের প্রধান উপদেষ্টা ড. একে লুৎফুল কবির।  

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, পরিবেশ ধ্বংস হলে মানব জাতির অস্তিত্ব বিপন্ন হবে। পরিবেশের সঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তন এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয় দুটি অবধারিত ভাবেই চলে আসে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সারা পৃথিবী হুমকির মুখে পড়েছে। সবচেয়ে বেশি হুমকির মুখে পড়েছে বাংলাদেশ। সকল মানুষকে পরিবেশ বিষয়ে সচেতন হওয়া অত্যন্ত জরুরী। শুধু পরিবেশ বিষয়ে সচেতন হলেই চলবে না, পাশাপাশি যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলায় পারদর্শী হতে হবে।

সংগঠনের উপদেষ্টা ড. লুৎফুল কবির বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবেশ সংসদের উদ্যোগে অচিরেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মল চত্বরে পাখিদের জন্য একটি অভয়াশ্রম করা হবে এবং বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার সকল দুর্লভ বৃক্ষকে পরিচয় করাতে নামফলক বসানো হবে।

উৎসবটি ২৮ জুলাই থেকে ৩০ জুলাই তিনদিনব্যাপী সকাল ১১ টা থেকে রাত ৮ পর্যন্ত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালার ৫ নং গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হয়। উৎসবে জীববৈচিত্র্য, পরিবেশ দূষণ, পরিবেশ সচেতনতা, প্রকৃতি, পরিবেশ বান্ধব ভ্রমণ, পরিবেশ রক্ষা সংক্রান্ত কর্মকান্ড, এবং প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট দুর্যোগ এই ৭টি ক্যাটাগরির চার সহস্রাধিক আলোকচিত্র জমা পড়েছিলো। তার মধ্য থেকে বিচারকদের বাছাই করা ১৬০টি আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে। 

বিচারক হিসেবে ছিলেন বিশিষ্ট পরিবেশ আলোকচিত্রী ও পাখি বিশেষজ্ঞ ইনাম আল হক, বিশিষ্ট আলোকচিত্রী খন্দকার মফিজুল ইসলাম এবং পরিবেশ আলোকচিত্রী ও বাঘ সংরক্ষণ কর্মী ফাতিম হাসান।

উৎসবে চ্যাম্পিয়ন আলোকচিত্রীকে দশ হাজার, ১ম রানার আপ আলোকচিত্রীকে সাত হাজার এবং ২য় রানার আপ আলোকচিত্রীকে শিল্পীকে পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হয়। এছাড়াও বিজয়ীদের ক্রেস্ট, সার্টিফিকেট এবং বাঁধাই করা ছবি প্রদান করা হয়। 

বাংলাদেশ সময়: ২৩১৪ ঘণ্টা, জুলাই ৩০, ২০১৮
এসকেবি/এএইচ

শনিবার থেকে লঞ্চের স্পেশাল সার্ভিস
নাট্যকার সেলিম আল দীনের জন্ম
কোটার বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেলের মত চেয়েছে সরকার
কেরালায় বন্যায় ৩২৪ জনের মৃত্যু, আশ্রয় শিবিরে সোয়া ২ লাখ
ডিমলায় জামায়াতের শীর্ষ ৪ নেতা আটক
স্বাচ্ছন্দ্যেই নৌপথে ঘরে ফিরছেন মানুষ
বাংলাদেশ-ইন্দোনেশিয়া সম্পর্ক ঐতিহাসিক ও বন্ধুত্বপূর্ণ
মন সুস্থ রাখে খেলাধুলা, বুদ্ধি বাড়ায় দাবা
লুটেরাদের কাউকে ছাড়া হবে না: ইমরান খান
বাজপেয়ীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী