স্বপ্ন ডানায় ভর করে উড়াল দিলো ওরা…

মাহবুবুর রহমান মুন্না, ব্যুরো এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

প্রথমবর্ষে ভর্তিকৃত নবাগত শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসের প্রথম দিন/ছবি: মানজারুল ইসলাম

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে: নতুন স্বপ্নডানায় ভর করে আজ ওরা উড়াল দিয়েছে। বাঁধনহারা মুক্ত পাখির মতো। সীমাহীন আনন্দ উল্লাসে মাতোয়ারা নতুন শিক্ষার্থীরা স্বপ্নজগতের নতুন বাসিন্দা।
 

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে (খুবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের প্রথমবর্ষে ভর্তিকৃত নবাগত শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসের প্রথম দিনের অনুভূতি ছিলো যেন এমনই।

বৃহস্পতিবার (০৪ জানুয়ারি) পৌষের তেজহীন রোদেলা দুপুরে উত্তরের হিমশীতল বাতাসে এসব নবাগতদের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হয়। উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান প্রথা অনুযায়ী নবাগত শিক্ষার্থীদের শপথবাক্য পাঠ করান।

তাদের কাছে দিনটি ছিল একেবারেই অন্যরকম। সারা জীবন মনে রাখার মতো। উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করে অনেকটা যুদ্ধময় পথ পাড়ি দিয়ে খুবির মতো উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আসতে পেরেছে ওরা। তাই আনন্দটাও ছিল অনেক বেশি। হাজারো স্বপ্নকে সারথি করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছুটে এসেছেন অদম্য এসব মেধাবীরা।

এবার খুবিতে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ৬টি স্কুল ও ১টি ইনস্টিটিউটের আওতায় ২৮টি ডিসিপ্লিনে মোট ১২০৪ জন শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছে।

ওরিয়েন্টেশনের আগে কথা হয় অদম্য মেধাবী কিছু নবীন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে।

ক্যাম্পাসের প্রথম দিনের অনুভূতি কেমন এমন প্রশ্নের হাসি মাখা মুখে খুবির আইন ও বিচার ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থী টাঙ্গাইলের তাওসিফ আনিকের সোজা উত্তর, এর চেয়ে বড় আনন্দের দিন আর হয় না। খুবি আমার প্রথম পছন্দ ছিল। খুলনার মতো এমন যানজট ও কোলাহল মুক্ত শহরে খুবির মতো এমন রাজনীতি মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় কার না ভালো লাগে। এজন্য পরিবারের প্রথম পছন্দই ছিল খুবি। আশা করি এই ক্যাম্পাস থেকেই একদিন সুনাগরিক হয়ে দেশের জন্য কিছু করবো।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থী যশোরের সাদমান সাকিব বলেন, পড়াশোনার দিক দিয়ে খুবি সবসময় অন্যদের থেকে এগিয়ে। এখানকার ডিসিপ্লিন, সিনিয়র-জুনিয়র সম্পর্ক সব কিছুই আমার কাছে এক অন্যরকম জায়গার সৃষ্টি করে। আমার মতে একজন ভালো মানুষ গড়ে তুলতে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের যা প্রয়োজন তার সবই আছে এখানে।

...সমাজবিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থীর খুলনার রোকাইয়া আহমেদ রুপন্তি বলেন, ছোট বেলা থেকেই স্বপ্ন ছিল খুবিতে পড়বো। যদিও একটা সময় ডাক্তারও হতে চেয়েছিলাম। তবে পরিবারও চেয়েছিল আমি খুবিতে পড়ি। কেননা তাদের ইচ্ছা আমি লেকচারার হই। এখানকার ডিসিপ্লিন ও শিক্ষা আমাকে আমার লক্ষ্যে অটুট রাখতে সাহায়তা করবে এই কামনাই করি।

এসব শিক্ষার্থীর মতো ক্যাম্পাসের প্রথম দিন সবার কাছেই অমলিন। গোটা ক্যাম্পাস জীবনের যা স্মৃতি তা যেন ক্যাম্পাসের প্রথম দিনকেই ঘিরে। নবাগত এসব শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসকে পরিবারের মতো আপন করে নেবে।  সবুজ ক্যাম্পাসের প্রতিটি দিনের স্মৃতি তারা কাটাবে আনন্দ উচ্ছাসে এমন প্রত্যাশা সবার।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৮ ঘণ্টা,  জানুয়ারি ০৪ , ২০১৮
এমআর/এসএইচ

জাপানে তাপদাহে নিহত ৩০, সতর্কতা জারি
লস অ্যাঞ্জেলেসে দোকানে জিম্মি সংকটের পর আটক ১, নিহত ১
গোবিন্দগঞ্জে আমদানি নিষিদ্ধ ভারতীয় ট্যাবলেট উদ্ধার
১৯ ঘণ্টা পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে লঞ্চ চলাচল শুরু
লেবু চাষে লাভবান ধামরাইয়ের চাষিরা
১০ মিনিটের আগুনে পুড়ে ছাই বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের মঞ্চ
আচরণবিধি লঙ্ঘনের ছবি তোলায় সাংবাদিককে মারধর
‘সাংস্কৃতিক উৎকর্ষ সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ প্রতিহত করে’
এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের এজিএম অনুষ্ঠিত
নিজেদের এগিয়ে নিতে শিক্ষার্থীদের স্বপ্ন দেখতে হবে