‘কার্বন গ্রিনে’ ১০ মিনিটেই দূর হবে কীটনাশক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লাইফ অ্যান্ড হেলথ'র স্টল

ঢাকা: ফরমাল ডি হাইড্রেট নামক রাসায়নিকের ৪০ শতাংশ জলীয় দ্রবণই হচ্ছে ফরমালিন। বর্ণহীন ঝাঁঝালো গন্ধযুক্ত ফরমালিন মৃতদেহ এবং বিভিন্ন দ্রব্য সতেজ রাখতে পরিমিত মাত্রায় ব্যবহার করার কথা।

কিন্তু বর্তমানে বেশি লাভের আশায় আমাদের দেশের এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী খাদ্যদ্রব্যে অনিয়ন্ত্রিত মাত্রায় ফরমালিন ব্যবহার করে। মাত্রাতিরিক্ত ফরমালিনযুক্ত খাবার খেয়ে চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়েছে জনগণ। আবার ফল পাকাতে ব্যবহার করা হচ্ছে কার্বাইড। সবজি ক্ষেতে ক্ষতিকারক কীটনাশক স্প্রে করার পর পরই  তা বাজারে আনা হচ্ছে বিক্রির জন্য। সেই সবজি খেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে মানুষ।   

মাত্র কয়েকমাস আগেও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় ক্ষতিকর রাসায়নিক ছাড়া কোনো খাদ্যদ্রব্য পাওয়া প্রায় অসম্ভব ছিলো। সরকারের রাসায়নিক বিরোধী নিয়মিত অভিযানের ফলে এখন এর প্রকোপ কিছুটা কমলেও বন্ধ হয়নি। এখনো ফল, মাছ, মাংস, সবজি, মিষ্টিসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যে প্রতিনিয়নত মেশানো হচ্ছে এসব বিষ। 

এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় ‘লাইফ অ্যান্ড হেলথ’ নিয়ে এসেছে ‘কার্বন গ্রিন’ নামের রাসায়নিক (কীটনাশক, ফরমালিন অন্যান্য) রিমুভার।

থাইল্যান্ড থেকে আমদানিকৃত এ পণ্যে মেলা উপলক্ষে রয়েছে আকর্ষণীয় ছাড়। ৮০ গ্রামের পাঁচ প্যাকেটের একটি লটের রেগুলার মূল্য ১২৫ টাকা থেকে কমিয়ে ১০০ টাকা করা হয়েছে এবং ২০ প্যাকেটের লটের মূল্য ৫০০ থেকে ৪০০ টাকা করা হয়েছে।

একই সঙ্গে প্রতিটি পণ্যের সঙ্গে আকর্ষণীয় পুরস্কার আর র‌্যাফেল ড্র’র ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির অ্যাসিসট্যান্ট মার্কেটিং ম্যানেজার আইভি ট্রিপল্যান্ড।

আইভি বলেন, ফলমূল, শাক-সবজিসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যে ব্যবহৃত কীটনাশক, কার্বাইড, ফরমালিনসহ বিভিন্ন রাসায়নিক মানবদেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। এসব রাসায়নিক নিয়মিত ব্যবহার করলে চর্ম রোগ, শ্বাসকষ্ট ও চোখের কর্নিয়া নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এজন্য আমরা এসব রাসায়নিক রিমুভার বাজারে এনেছি। এর মাধ্যমে মাত্র ১০ মিনিটেই শাক-সবজি, ফলসহ নিত্য পণ্য সম্পূর্ণ কীটনাশকসহ বিভিন্ন রাসায়নিক মুক্ত করা সম্ভব।

আইভি বাংলানিউজকে আরো বলেন,আট গ্রামের একটি কার্বন গ্রিন ১০ লিটার পানিতে মিশিয়ে তাতে ১০ মিনিট শাক-সবজি ভিজিয়ে রাখলেই দূর হবে কীটনাশক। ১০ লিটারের এ দ্রবণে ১০ কেজি সবজি ভেজানো যাবে।
 

বাণিজ্য মেলার ফরেন প্যাভিলিয়নের এ ১৯ নম্বর স্টলে এলার্জি ও ডাস্ট মাইট প্রতিরোধক বেড কাভার, থাইল্যান্ডে তৈরি বিভিন্ন ফলের জুস, অর্গানিক ডিটারজেন্ট এবং বাচ্চাদের প্রাকৃতিক ও পুষ্টিকর খাবার বিক্রি করা হচ্ছে। এসব পণ্য কিনলে মিলছে ছাড় এবং উপহার। স্টলের সবক’টি পণ্যই স্বাস্থ্য সচেতন ব্যক্তিদের জন্য উপযুক্ত বলে জানান তিনি।

ক্রেতা এম রহমান বাংলানিউজকে বলেন, আমি ‘লাইফ অ্যান্ড হেলথ’ এর স্ট্রবেরি ফলের জুস নিয়মিত কিনি। মেলায় ছাড় দিয়েছে এজন্য বেশি করে নিয়েছি। এদের বেড কাভারগুলোও শুনেছি স্বাস্থ্যসম্মত, এজন্য দেখছি নেওয়া যায় কি না।

বাংলাদেশ সময়: ২০৩৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০১৭
এসআইজে/এসআই

দিনাজপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় দিনমজুর নিহত
সুনামগঞ্জে বিদেশি রিভলবারসহ যুবক আটক
পদ্মা সেতুর পিলারে উঠছে দ্বিতীয় স্প্যান
গুরুদাসপুরে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
বিশ্ব ইজতেমার ক্রমবিকাশ
মাঝরাতে শীতার্তদের পাশে ইউএনও
‘পদ-পদবী চিরস্থায়ী নয়’
ঠাকুরগাঁওয়ে দুই ইয়াবা ব্যবসায়ী আটক
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা
সোমবার প্রকাশিত হবে বামফ্রন্টের প্রার্থী তালিকা




Alexa