কেনাকাটার ফাঁকে বিনোদনে উচ্ছ্বসিত দর্শনার্থীরা!

মানসুরা চামেলী, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মোবাইলের ক্যামেরায় সেলফি তুলছেন তরুণ-তরুণী। ছবি: জিএম মুজিবুর

ঢাকা: লাল রঙের গাড়িতে উঠে স্টেয়ারিং ধরে বসলেন এক তরুণী। পাশের সিটে বসা বান্ধবি। স্টার্ট দেওয়ার অাগে গাড়ির সামনে থাকা বন্ধুর মোবাইলের ক্যামেরায় সেলফিতে অাবদ্ধ হলেন। এরপর গাড়ি ছুটতে থাকলো চিটাগাং রোডে।

দৃশ্যটি বাস্তবের তবে বাণিজ্যমেলার প্রাঙ্গণের। মেলা প্রাঙ্গণে রাখা বোর্ডের তৈরি প্রাইভার নিয়ে রিতিকা হৈমন্তি ও তার বন্ধুদের এভাবে অভিনয় করতে দেখা গেলো।মেলায় মিনি সুন্দরবনের একাশং। ছবি: জিএম মুজিবুর

বাণিজ্য মেলা প্রাঙ্গণে অাগত দর্শনার্থীদের বাড়তি বিনোদনের জন্য হোসেইন টায়ার প্যাভিলিয়নের সামনে রাখা হয়েছে এই প্রাইভেটকারটি। মেলায় অাসা তরুণ-তরুণীদের অাগ্রহ নিয়ে গাড়ি চালানোর পোজ দিতে দেখা যায়। 

এবারের ঢাকা অান্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় ব্যবসার প্রসারের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের বিনোদনের বিষয়টি বেশ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। দর্শনার্থীদের বাড়তি বিনোদনের জন্য যোগ করা হয়েছে বেশকিছু নতুন বিষয়।মেলায় মিনি সুন্দরবনের একাশং। ছবি: জিএম মুজিবুরসোমবার ( ৮ জানুয়ারি) মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, মেলায় প্রবেশ পথ করা হয়েছে দেশের নির্মাণাধীন বৃহৎ স্বপ্নসেতু পদ্মার অাদলে। দর্শনার্থীদের জন্য বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়নে অানা হয়েছে নতুনত্ব। সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড করা বঙ্গবন্ধু প্যাভিলয়ন। দর্শনীয় এই প্যাভিলিয়নের সামনে জলে ভাসছে ছোট বড় নৌকা। প্যাভিলিয়ন ঘিরে দর্শনার্থীদের ভিড় দেখা যায়।

মেলায় স্বাচ্ছন্দ্যভাবে ঘোরাঘুরির জন্য রাখা হয়েছে ফুল বাগানের পাশে সজ্জিত বসার স্থান। বিভিন্ন প্যাভিলয়নের পাশে স্বচ্ছ ও রঙিন জলের ফোয়ারা।

মেলায় অাগত ইশরাত নামে এক গৃহিনী বাংলানিউজকে জানান, মেলায় ঘুরতে অনেক সময় ক্লান্তি অাসে। একটু বসার জায়গা থাকলে ভালো লাগে। সঙ্গে যদি বাচ্চাদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা থাকে এটা অারো ভালো। এবারের বাণিজ্যমেলায় সুন্দরবন, শিশুপার্ক ভালো লাগলো।মেলায় মিনি সুন্দরবনের একাশং। ছবি: জিএম মুজিবুরএবারের মেলায় প্রথমবারের মতো মিনি সুন্দরবন বানানো হয়েছে। যেখানে সুন্দরবনের গাছপালা ও কিছু জীবজন্তু স্থান পেয়েছে। মিনি সুন্দরননের পাশে রয়েছে ছোটদের বিনোদনের জন্য শিশু পার্ক।

মেলায় মার্কস, প্রাণ ফ্রুটো, ফ্রুটিকা ল্যাভেলো অাইসক্রিমসহ অন্যান্য দৃষ্টিনন্দন প্যাভিলনগুলোও দর্শনার্থীদের বাড়তি বিনোদনের যোগান দিচ্ছে। অার্কষণীয় প্যাভিলয়নগুলো ঘিরে তরুণ-তরুণীদের সেলফি তোলার হিড়িক দেখা গেলো। মেলা প্রাঙ্গণ। ছবি: জিএম মুজিবুরবাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) ফিল্ড কর্মকর্তা রাশেদ বলেন, মেলার পরিসর অনেক বড়। ঘোরাঘুরি করতে ক্লান্তি অাসতে পারে এজন্য পার্কে বসার স্থানসহ বিভিন্ন বিনোদনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। দর্শনার্থীরা মেলায় এসে যাতে একঘেয়ামিতে না পড়ে এজন্য মেলাকে মনোরম পরিবেশে সাজানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৮, ২০১৮
এমসি/এএটি

শীতের প্রভাব বাণিজ্যমেলায় 

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে আরো ৬ ‘হাট’
শিক্ষার্থীর সন্তানরাও থাকতে পারবে জবি ডে-কেয়ার সেন্টারে
‘ভোট সুষ্ঠু হইলে দ্যাখবেন হানে’
বিশেষ ক্ষমতা আইনের বিলুপ্ত ধারায় মামলা না করার নির্দেশ 
রেললাইনে দাঁড়িয়ে ফোনালাপ, প্রাণ গেলো যুবকের
হত্যা মামলায় ঈশ্বরদী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কারাগারে
ঢাকায় মৌসুমের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত
ইমরানকে বিদেশ যেতে বাধা না দিতে নির্দেশ
বিজয়ী হলে বরিশাল নগরের উন্নয়ন করা হবে: ওবাইদুর
চুয়েটে নির্মিত হচ্ছে স্বাধীনতা ভাস্কর্য