সপ্তাহজুড়ে উভয় স্টকে সূচক ও লেনদেন কমেছে

53 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

দেশের প্রধান দুই শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহজুড়ে সূচক ও লেনদেন কমেছে। গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ৩৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ।
 

ঢাকা: দেশের প্রধান দুই শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহজুড়ে সূচক ও লেনদেন কমেছে। গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ৩৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ।
 
অন্যদিকে, গত সপ্তাহে ডিএসইর সাধারণ সূচক (ডিএসইএক্স) কমেছে ৫৪ দশমিক ৯৫ পয়েন্ট ও ডিএসই-৩০ সূচক কমেছে ২৩ দশমিক ২৮ পয়েন্ট।
 
গত সপ্তাহে সিএসই’র সব ধরনের সূচক কমেছে। সিএসসিএক্স সূচক কমেছে ৯৬ পয়েন্ট, সিএসই-৩০ সূচক কমেছে ১৭৫ পয়েন্ট এবং সিএএসপিআই সূচক কমেছে ১৫১ পয়েন্ট। এছাড়া গত সপ্তাহে সিএসইতে লেনদেন কমেছে ১৫০ কোটি ৫৮ লাখ ৩৩ হাজার ২ টাকা।
 
গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার ডিএসইর সাধারণ সূচক (ডিএসইএক্স) ছিল ৪ হাজার ২৯৯ দশমিক ৫৮ পয়েন্ট। সপ্তাহ শেষে বৃহস্পতিবার সূচক কমে দাঁড়ায় ৪ হাজার ২৪৪ দশমিক ৬৪ পয়েন্টে।

অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক (ডিএসইএক্স) কমেছে ৫৪ দশমিক ৯৫ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ২৮ শতাংশ।
 
গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার সিএসইর সিএসসিএক্স সূচক ছিল ৮ হাজার ৪৩৬ পয়েন্টে। সপ্তাহ শেষে বৃহস্পতিবার সূচক কমে দাঁড়ায় ৮ হাজার ৩৪০ পয়েন্টে।

অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসসিএক্স সূচক কমেছে ৯৬ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ১২ শতাংশ।
 
অন্যদিকে, গত সপ্তাহের অধিকাংশ কার্যদিবসেই ডিএসই ও সিএসই’র সূচক কমেছে। এছাড়া কমেছে ডিএসই ও সিএসইতে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের দাম।
 
গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট লেনদেন কমেছে ৩৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ। লেনদেন হয়েছে মোট দুই হাজার ৪৯ কোটি ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৯১০ টাকা। এর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল তিন হাজার ১৯৯ কোটি ৬২ লাখ ৫৩ হাজার ২৫৮ টাকা।
 
গত সপ্তাহের ৪ কার্যদিবসে ডিএসইর ২৯৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৮৭টির, কমেছে ১৯০টির ও অপরিবর্তিত ছিল ১৯টির দাম। লেনদেন হয়নি ৩টি প্রতিষ্ঠানের।

এর আগের সপ্তাহে লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছিল ১৯০টির, কমেছে ৯৩টির ও অপরিবর্তিত ছিল ১২টির দাম। লেনদেন হয়নি ৪টি প্রতিষ্ঠানের।
 
ডিএসই ও সিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এদিকে মোট ৪ কার্যদিবসের ডিএসই’র দৈনিক গড় লেনদেন কমেছে। গত সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন দাঁড়ায় ৫১২ কোটি ২৭ লাখ ৬৬ হাজার ২২৮ টাকা। এর আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন ছিল ৬৩৯ কোটি ৯২ লাখ ৫০ হাজার ৬৫২ টাকা।

অর্থাৎ গত সপ্তাহে এর আগের সপ্তাহের চেয়ে গড় লেনদেন কমেছে ১৯ দশমিক ৯৫ শতাংশ।
 
এছাড়া ডিএসইতে কমেছে শেয়ার লেনদেনের পরিমাণ। গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৫১ কোটি ৮২ লাখ ৭০ হাজার ৭৬টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে। গত সপ্তাহের আগের সপ্তাহে শেয়ার লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৮০ কোটি ৭৩ লাখ ৬৩ হাজার ৫২১টি। সুতরাং গত সপ্তাহে শেয়ার লেনদেন কমেছে ৩৫ দশমিক ৮১ শতাংশ।
 
সাপ্তাহিক দাম বৃদ্ধির ভিত্তিতে ডিএসইর শীর্ষ দশ কোম্পানি হলো- সিনো বাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ (২৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ), আনোয়ার গ্যালভানাইজিং (১৭ দশমিক ৩৫ শতাংশ), বিচ হ্যাচারি (১৫ দশমিক ৯৩ শতাংশ), আরগন ডেনিমস (১৩ দশমিক ৯৪ শতাংশ), বিডি কম অনলাইন (১২ দশমিক ৮১ শতাংশ), দেশবন্ধু পলিমার (১২ দশমিক ৪৪ শতাংশ), জেনারেশন নেক্সট (১২ দশমিক ১০ শতাংশ), এসআলম কোল্ড রোল স্টিল (১১ দশমিক ৩৬ শতাংশ), লিগ্যাসি ফুটওয়্যার (১১ দশমিক ১১ শতাংশ) এবং গ্রামীণ স্কিম-২ (১০ দশমিক ৬৫ শতাংশ)।
 
অন্যদিকে সপ্তাহ শেষে দাম কমার ভিত্তিতে ডিএসইর শীর্ষ কোম্পানিগুলো হলো- মডার্ন ডায়িং (১৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ), দুলামিয়া কটন (১৪ দশমিক ১৩ শতাংশ), ইমাম বাটন (১১ দশমিক ১১ শতাংশ), সোনালী আঁশ (১০ দশমিক ৮২ শতাংশ), রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স (৯ দশমিক ৩৫ শতাংশ), জুট স্পিনার্স (৯ দশমিক ২৬ শতাংশ), প্যারামউন্ট টেক্সটাইল (৮ দশমিক ৮৯ শতাংশ), তাকাফুল ইসলামী ইন্স্যুরেন্স (৭ দশমিক ৪৩ শতাংশ), পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স (৭ দশমিক ০৪ শতাংশ) এবং সোনার বাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ (৬ দশমিক ৮৭ শতাংশ)।
 
বাংলাদেশ সময়: ১২৪০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০১৩
সম্পাদনা: জনি সাহা, নিউজরুম এডিটর

মাধবপুরে এক ব্যক্তির গলিত মরদেহ উদ্ধার
জাতীয় ঈদগাহে ৫ স্তরের নিরাপত্তা
বিমানবন্দর স্টেশনেও উপচে পড়া ভিড়
অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ৩৬ প্রসূতির টাকা লোপাটের অভিযোগ
বংশালে ছুরিকাঘাতে আহত যুবকের মৃত্যু
বাছাইপর্বে বাদ পড়লেন জাকিয়া-রত্না
কামারখন্দে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১
পাবনায় বহুতল ভবনে আগুন, পুড়ে গেছে ২০ দোকান 
মানুষের মনে ঈদের আনন্দ নেই: রিজভী
জামিন মিললো নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের আরও ৩ শিক্ষার্থীর