সপ্তাহে একদিন ‘কার ফ্রি’ ডে পালনের প্রস্তাব বিশেষজ্ঞের

মিজানুর রহমান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চুয়েটের প্রফেসর ড. স্বপন কুমার পালিত।

চট্টগ্রাম: নগরের যানজট নিরসনে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) প্রফেসর ড. স্বপন কুমার পালিত।

বাংলানিউজের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় যানজট নিরসনে তার অভিমত তুলে ধরেন তিনি।

ড. স্বপন কুমার পালিত বলেন, চট্টগ্রাম শহরে যানজট যেভাবে বাড়ছে তা নিয়ন্ত্রণে এখনই সমন্বিত পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি। অন্যথায় বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠতে পারে পাহাড়, বন্দর, সমতল নিয়ে গড়ে ওঠা চমৎকার এ শহরটি।

রাতারাতি এ অবস্থা থেকে উত্তরণ সম্ভব না হলেও সরকার স্বল্প, মধ্য এবং দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করলে যানজট সহনীয় মাত্রায় নেমে আসবে বলেও মত দেন তিনি।

স্বল্পকালীন পরিকল্পনার বিষয়ে পুরকৌশল বিভাগের এ অধ্যাপক বলেন, নগরে হাঁটাচলার জন্য ফুটপাত কিংবা রাস্তা ধীরে ধীরে সংকুচিত হয়ে আসছে। এজন্য যেমন নতুন নতুন ‘ওয়াকওয়ে’ নির্মাণ জরুরি তেমনি ‘নন-মোটরাইজড’ যানবাহনের জন্য আলাদা সড়ক কিংবা লেন তৈরি করতে হবে। কারণ মূল সড়কে যখন মানুষ এবং রিকশাভ্যানের মতো ধীরগতির গাড়ি চলাচল করে, তখন দ্রুতগতির গাড়ি এগোতে পারে না।

যানজটের জন্য সড়কে অবৈধ পার্কিং ও সড়ক দখল করে হকার বসাকে বড় কারণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, একটি মানসম্মত শহরের মূল ভূখণ্ডের অন্তত ২৫ শতাংশ এলাকাজুড়ে সড়ক থাকা দরকার। আমরা গবেষণা করে দেখেছি, চট্টগ্রাম শহরে আছে মাত্র ১০ শতাংশ। তাই যতটুকু আছে তা সুষ্ঠুভাবে ব্যবহার করতে হবে। কোনোভাবেই সড়ক অবৈধ দখলে রাখা যাবে না।

স্কুলবাস চালুর পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, নগরের প্রায় সব স্কুল ব্যস্ত সড়কের পাশে অবস্থিত। এসব স্কুলের নিজস্ব পরিবহন ব্যবস্থা না থাকায় শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ ব্যবস্থায় যাতায়াত করে। অনেকের অভিভাবক ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে স্কুলের সামনে অপেক্ষা করেন। অন্যদিকে নগরের বেশিরভাগ স্কুলে একই সময়ে ক্লাস শুরু ও শেষ হওয়ার কারণে ভয়াবহ যানজটের সৃষ্টি হয়। স্কুলবাস চালু হলে এবং স্কুলগুলো একই সময়ে ছুটি না দিয়ে ক্লাস্টার করে ছুটি দিলে যানজট কিছুটা কমতে পারে।

গণপরিবহনের (বাস) সংখ্যা এবং মান বাড়ানোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, একটি প্রাইভেট কারে একসঙ্গে ৫ জন যাতায়ত করতে পারে। কিন্তু একটি বাসে অন্তত ৪০ জনের জায়গা হয়। অথচ আয়তনে বাসটি প্রাইভেট কারের তুলনায় মাত্র দেড় গুণ বড়। এজন্য ব্যক্তিগত গাড়ির প্রতি আসক্তি কমাতে পাবলিক বাসের মান বাড়ানো জরুরি। প্রয়োজনে সপ্তাহে অন্তত একদিন ‘কার ফ্রি’ ডে পালন করা যেতে পারে।

নগরের ট্রাফিক সিগন্যাল ব্যবস্থা আরও আধুনিক ও উন্নত হওয়া প্রয়োজন উল্লেখ করে ড. স্বপন কুমার পালিত বলেন, গুরুত্বপূর্ণ অনেক মোড়ে ট্রাফিক সিগন্যাল অকার্যকর। ট্রাফিক পুলিশের হাতই সেখানে ভরসা। এভাবে তো একটি শহরের ট্রাফিক ব্যবস্থা চলতে পারে না। ট্রাফিক ব্যবস্থা আরও আধুনিক করলে আইন ভাঙার প্রবণতা কমবে। যারা ট্রাফিক আইন মানবে না তাদের আইনের আওতায় আনা সহজ হবে।

মধ্যমেয়াদি পরিকল্পনার বিষয়ে তিনি বলেন, যানজট কমাতে নগরের অভ্যন্তরে যেহেতু নতুন সড়ক নির্মাণ সম্ভব নয়, তাই ব্যয়বহুল হলেও ‘এলিভেটেড এক্সপ্রেস হাইওয়ে’ নির্মাণ করা জরুরি।

এছাড়াও পর্যাপ্ত পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করা, রেল ও নদীপথের উন্নতি ঘটিয়ে পণ্য পরিবহনে সেগুলোর যথাযথ ব্যবহার করলে সড়কের ওপর পণ্যবাহী গাড়ির চাপ কমতে পারে বলে মত দেন তিনি।

পরিবেশবান্ধব টেকসই যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলা, যানবাহনগুলোকে আলাদা আলাদা গ্রেডে ভাগ করে প্রতিটি গ্রেডের জন্য আলাদা আলাদা সড়ক ব্যবহার নিশ্চিত করার মতো দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করলে যানজট সহনীয় মাত্রায় চলে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন প্রফেসর ড. স্বপন কুমার পালিত।

যখন খুশি ওভারটার্ন, লেগে যায় যানজট

‘ফুঁ’ দিয়ে যানজট তাড়ানোর চেষ্টা!

গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনার দায়িত্ব নিয়েছি: নাছির

নিউমার্কেট মোড়ে অসহায় ট্রাফিক পুলিশ

সড়কে গাড়ি দাঁড়ালেই যানজট জিইসি মোড়ে

যাত্রী তোলার অসুস্থ প্রতিযোগিতা বহদ্দারহাট মোড়ে

বাংলাদেশ সময়: ১২০০ ঘণ্টা, মে ১৩, ২০১৮
এমআর/এআর/টিসি

বাড্ডায় ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু
নজরুল আমাদের স্বাধীনতার সত্ত্বাকে করেছেন জাগ্রত
ফাস্ট বোলারদের প্রতি বিশেষ নজর ওয়ালশের
আন্দোলনে নজরুলের লেখনী উজ্জীবিত করেছে: রাষ্ট্রপতি
মতিঝিল থেকে নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার
আইনি ঝামেলায় সাইফকন্যা
ব‌রিশা‌লে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের ইফতার
জোড়াসাঁকোয় বাংলাদেশ গ্যালারি হবে: প্রধানমন্ত্রী
পরিচয় মিলেছে নেত্রকোনায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত একজনের
বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি খেলোয়াড় ম্যানসিটির