বাবরের গাড়িতে গুলিবর্ষণকারীদের ধরছে না পুলিশ

চট্টগ্রাম প্রতিদিন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন নগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এমআর আজিম ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি

চট্টগ্রাম: যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির উপ-অর্থ সম্পাদক ও এমইএস কলেজ ছাত্রসংসদের সাবেক জিএস হেলাল আকবর চৌধুরী বাবরের গাড়ি ও বাড়ি লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করলেও পুলিশ গ্রেফতার করছে না বলে অভিযোগ করেছেন প্রতিবাদ সমাবেশের বক্তারা।

সোমবার (১২ মার্চ) বিকেলে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে কোতোয়ালি থানা যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে তারা এ অভিযোগ করেন।

নগর ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য শিবু প্রসাদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং নগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি একরামুল হক রাসেলের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন মহানগর আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মানস রক্ষিত, নগর আওয়ামী লীগের উপ দপ্তর সম্পাদক কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক ও নগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এমআর আজিম, বন্দর সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক হাজি ইকবাল, কোতোয়ালি থানা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হাসান মনসুর, নগর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি রাজীব দত্ত রিংকু, নগর যুবলীগের সদস্য ও এমইএস কলেজ ছাত্রসংসদের ভিপি মো. ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য পংকজ রায়, মো. আলী হোসেন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মেজবাহ উদ্দিন মোরশেদ, মনোয়ারুল আলম চৌধুরী নোবেল, সেলিম উদ্দিন জয়, নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা পাভেল ইসলাম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য রাজেশ বড়ুয়া, আবদুর রহিম শামীম, রেজাউল হক রুবেল, কামরুল হুদা পাভেল, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল করিম, মনির ইসলাম, জাবেদুল ইসলাম জিতু, মোক্তার হোসেন রাজু, মহসিন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা কাজী নাঈম, আনোয়ার হোসেন পলাশ, মায়মুন উদ্দিন মামুন প্রমুখ।           

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে ইতিপূর্বে গুলিবর্ষণকারীদের শনাক্ত করেছে পুলিশ। কিন্তু বরাবরের মতোই এবারও নগর পুলিশ আসামিদের গ্রেফতার করছে না। বারবার চট্টগ্রামের রাজনৈতিক নেতৃত্বের ওপর হামলা ও খুনের ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে জনমনে আজ প্রশ্ন উঠেছে। পুলিশের নীরবতাকে পুঁজি করে চট্টগ্রামের আওয়ামী মতাদর্শের নেতা-কর্মীদের টার্গেট কিলিং করা হচ্ছে। অপরাজনীতির মাধ্যমে আদর্শিক রাজনীতির পরিবেশ আজ বিষাক্ত করা হচ্ছে চট্টগ্রামে।

বক্তারা নগর পুলিশ কমিশনারের উদ্দেশে বলেন, সম্প্রতি চট্টগ্রাম শহরের আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে আছেন। পদোন্নতি পেয়ে চট্টগ্রাম থেকে অল্প কিছুদিনের মধ্যে আপনি বিদায় নেবেন। চট্টগ্রামের আওয়ামী রাজনীতির আদর্শিক ধারাকে টিকিয়ে রাখার স্বার্থে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আপনি এখনি কার্যকর ব্যবস্থা নিন।

উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি এইচএম কাজল, মো. ইউনুছ, কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম, ফরিদ নেওয়াজ, নাজমুল আহসান, ইলিয়াছ সরকার, কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের উপ কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মীর মহিউদ্দিন, সদস্য গাজী মো. জাফর উল্লাহ, রিটু দাশ বাবলু, ছোটন বড়ুয়া, খোরশেদ আলম, এম কুতুব উদ্দিন, নাছির উদ্দিন ফাহিম, সঞ্জীব বিশ্বাস সাজু, মো. মোরশেদ আলম, মোসলেহ উদ্দিন শিবলী, মো. জাহেদ, মো. দেলোয়ার হোসেন, আমিরুল ইসলাম সানু, রফিকুল আলম বাপ্পী, আক্তার হোসেন, হোসেন আহমদ রুবেল, নগর ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক অমিতাভ চৌধুরী বাবু, সম্পাদক লিটন চৌধুরী রিংকু, আবুল মনসুর টিটু, উপ সম্পাদক কবির আহমেদ, আবদুল্লাহ আল মামুন, আবদুল আহাদ, সহ-সম্পাদক কায়সার মাহমুদ রাজু, সাব্বির সাকির, সদস্য মোশরাফুল হক পাভেল, দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহদাত হোসেন মানিক, রেজাউল করিম লিটন, শাহাদাত হোসেন পারভেজ, শাহজাদা চৌধুরী, নোমান চৌধুরী, তৌহিদুল আলম, মো. রাফসানুল হক, মো. ইমরান, জুবাইদুল আলম আশিক প্রমুখ।  

যুবলীগনেতা বাবরের গাড়িতে গুলির ঘটনায় মামলা

বাংলাদেশ সময়: ২২১৮ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০১৮ 

এআর/টিসি

আবাসিকে গ্যাস সংকট থাকছে না চট্টগ্রামে
এনআরসি ইস্যুতে দ্বিধা বিভক্ত সরকার, অভিযোগ বীরজিতের
প্রধানমন্ত্রীকে এসএমএস করে কোরবানির গরু পেলেন তারা
বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ২ নম্বর ইউনিট চালু
পাসপোর্ট করতে এসে রোহিঙ্গা তরুণী আটক
ব্যাংকের সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিতের নির্দেশ
যাত্রীর চাপ সামলাতে ফিটনেসবিহীন বাস-ট্রাক
পঁচাত্তরের খুনিদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না জনগণ
সদরঘাটে ঘরমুখো যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড়
ট্রেনের ছাদ-ইঞ্জিন-বগি, বাদ নেই কিছুই!