চট্টগ্রামে সংগঠন শক্তিশালী করতে চায় জাপা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

জাতীয় পার্টির চট্টগ্রাম বিভাগীয় কর্মিসমাবেশে বক্তব্য দেন ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ । ছবি: বাংলানিউজ

চট্টগ্রাম: দেশের মানুষ পরিবর্তন চায় মন্তব্য করে বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেছেন, ‘জাতীয় পার্টি চায় চট্টগ্রামে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে। সুসংগঠিত হয়েই আগামী নির্বাচনে যেতে।’

শুক্রবার (০৯ মার্চ) বিকেলে নগরীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জাতীয় পার্টির (জাপা) চট্টগ্রাম বিভাগীয় কর্মিসমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

কোন নেতা-কর্মীর মধ্যে ভেদাভেদ থাকা যাবে না জানিয়ে ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, ‘ডিসেম্বরেই জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তাই দলকে শক্তিশালী করা জরুরি। জাতীয় পার্টি নিয়মতান্ত্রিক, সাংবিধানিক ও নির্বাচনের রাজনীতিতে বিশ্বাসী। হোসেইন মুহাম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টি জনগণকে বিশ্বাস করে। তাই তো নয় বছরের শাসনামলে জাতীয় পার্টি দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নানামুখী উন্নয়নকাজ করেছে। বর্তমানে দেশে যে উন্নয়ন দেখছেন, সেগুলোর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন জাতীয় পার্টির হোসাইন মুহাম্মদ এরশাদ। তিনি দেশে উন্নয়নের পাশাপাশি মানুষকে ক্ষমতা দিয়েছিলেন। বর্তমান যে যমুনা সেতু, চট্টগ্রামের কর্ণফুলী সেতুটিও এরশাদ করেছেন। প্রতিটি জেলা, উপজেলায় হাসপাতাল, স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছিল।  

স্লোগানকে ঘিরে সোলেমান শেঠ ও মাহজাবীন মোরশেদের গ্রুপের মধ্যে চেয়ার ছোড়াছুড়ির ঘটনা ঘটে । ছবি: বাংলানিউজ

তিনি বলেন, দেশের মানুষকে সঙ্গে নিয়ে নয় বছর দেশকে সুশাসন করার পর ১৯৯০ সালে জাতীয় পার্টি ক্ষমতা হস্তান্তর করেছিল একটি কারণে। সেটি গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা। কিন্তু তৎকালীন জাতীয় পার্টির সব নেতাকে কারাগারে পাঠিয়েছিল।

এরশাদের জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় আনতে সব নেতা-কর্মীকে উজ্জীবিত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, সাবেক মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু এমপি, জাপার সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়ক মাহমুদুল ইসলাম, দক্ষিণ জেলার সভাপতি শামসুল আলম মাস্টার ও মাহজাবীন মোরশেদ এমপি।

সভায় বক্তব্য দেন মহানগর জাপার আহ্বায়ক সোলেমান আলম শেঠ, সদস্যসচিব ইয়াকুব চৌধুরী, দক্ষিণ জেলার সহ সভাপতি আবু বকর সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক নুরুচ্ছাফা সরকার প্রমুখ।

চেয়ার ছোড়াছুড়ি

সভায় স্লোগানকে ঘিরে সোলেমান শেঠ ও মাহজাবীন মোরশেদের গ্রুপের মধ্যে চেয়ার ছোড়াছুড়ির ঘটনা ঘটে। এ সময় সমাবেশে কিছুক্ষণ বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। পরে কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপে পুনরায় সভার কার্যক্রম শুরু হয়। পরবর্তীতে আবার স্লোগানকে ঘিরে বিশৃঙ্খলা দেখা দিলে জাপার সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী মাইক্রোফোনে নেতা-কর্মীদের হুঁশিয়ারি দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৫ ঘণ্টা, মার্চ ০৯, ২০১৮

এসবি/টিসি

ট্রেনের ছাদে ওঠা ঠেকাতে গলদঘর্ম প্রশাসন
মান্দায় ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত 
মিনায় লাখো মানুষের ঢল, হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু
প্রশান্ত মহাসাগরে শক্তিশালী ভূমিকম্প 
ট্রেন ছাড়ছে দেড় থেকে আড়াই ঘণ্টা দেরিতে
বকেয়া বেতনের দাবিতে রাজশাহী সুগার মিল শ্রমিকদের ধর্মঘট
খোয়া যাচ্ছে কাজিরবাজার পশুরহাটের ৩ কোটি টাকার রাজস্ব
কোরবানির পশু জবাইয়ে ৩৭০ স্থান নির্ধারণ চসিকের
পশুর হাটে ক্রেতা-বিক্রেতার কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ 
রোমাঞ্চকর ম্যাচে আর্সেনালকে হারালো চেলসি