ছিনতাইকারীর হাতে নথিপত্র হারিয়ে বিপাকে ব্যবসায়ী

চট্টগ্রাম প্রতিদিন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লোগো

চট্টগ্রাম: নগরীতে ছিনতাইকারীর হাতে নগদ টাকার সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র হারিয়ে বিপাকে পড়েছেন আবু হাসনাত চৌধুরী নামে এক ব্যবসায়ী।  বিশেষ করে সামরিক বাহিনীর জন্য তৈরি করা বুলেটপ্রুফ জ্যাকেটের স্যাম্পল এবং প্রতিরক্ষা বাহিনীর দরপত্র সংক্রান্ত বিভিন্ন নথি হারিয়ে অসহায় অবস্থার শিকার হয়েছেন ঠিকাদারি ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত এই ব্যক্তি।

বারবার পুলিশের কাছে ধর্ণা দিয়েও গত ৯ দিনে তিনি ফেরত আনতে পারেননি এই গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্রগুলো।  গ্রেফতার হয়নি ছিনতাইকারীরাও।

আবু হাসনাত বাংলানিউজকে জানান, ৪ জানুয়ারি ভোরে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে আসেন তিনি।  দামপাড়ায় সিল্কলাইন বাস কাউন্টার থেকে নগরীর ‍জামালখানে বাসায় ফেরার পথে সার্সন রোডে ২-৩ জন লোক তার রিকশার গতিরোধ করে।  এসময় ছিনতাইকারীরা ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে মানিব্যাগ, কাঁধের ব্যাগ ও লাগেজ এবং ২টি মোবাইল ফোন নিয়ে দ্রুত অটোরিকশায় করে পালিয়ে যায়।

মানিব্যাগে ৩ হাজার টাকা ছিল।  কাঁধের ব্যাগে নগর আরও ৫ হাজার ৫০০ টাকা ছিল।  এছাড়া কাঁধের ব্যাগে সামরিক বাহিনীর দরপত্রের বিভিন্ন নথিপত্র, একটি ল্যাপটপ, পাসপোর্ট, বিভিন্ন ব্যাংকের ৪টি কার্ড ছিল।  চট্টগ্রাম ক্লাব, খুলশী ক্লাব ও গলফ ক্লাবের মেম্বার কার্ডও ছিল। 

লাগেজে সামরিক বাহিনীর জন্য তৈরি করা বুলেটপ্রুফ জ্যাকেটের ২টি স্যাম্পল ছিল।  সামরিক বাহিনীর সঙ্গে চুক্তিপত্রের ডকুমেন্ট ছিল বলেও জানিয়েছেন আবু হাসনাত।

নগদ টাকা ও মালামাল মিলিয়ে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা দাম উল্লেখ করে আবু হাসনাত ওইদিনই চকবাজার থানায় মামলা দায়ের করেন।  তবে মামলায় এ পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি।

চকবাজার থানার ওসি মীর মো.নূরুল হুদা বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, ছিনতাইকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০১৮

টিসি

মেহেরপুরে অস্ত্র মামলায় ইউপি সদস্যের ১০ বছরের কারাদণ্ড
কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ, ৫ জন ৩ দিনের রিমান্ডে
সিভাসুর ৪১ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন
চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিক্ষক হত্যা মামলায় দুইজনের যাবজ্জীবন
জুন পর্যন্ত গ্রামীণফোনের গ্রাহক ৬ কোটি ৯২ লাখ
বিশ্বকাপে রাশিয়ায় আড়াই কোটি সাইবার অ্যাটাকের চেষ্টা
শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে পারের অপেক্ষায় ৬০০ গাড়ি 
ওমান মাতালেন ঐশী
সিনেমার ‘কালনাগিনী’ আসলে র্নিবিষ সাপ
বেনাপোল বন্দরে কর্মবিরতির দ্বিতীয় দিন