এবারের লালবাগ ফ্লাওয়ার শো কেন অনন্য

শুভ্রনীল সাগর, ফিচার এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

এবারের লালবাগ ফ্লাওয়ার শো কেন অনন্য- ছবি: বাংলানিউজ

ব্যাঙ্গালোর থেকে: লালবাগ ফ্লাওয়ার শো কী, কোথায়, কেন— তা বিস্তারিত বলা হয়েছে ‘২০০০০ গাছ-২০০ প্রজাতির ফুলে স্বাধীনতা বরণ’ প্রতিবেদনে।

এরপরও সংক্ষেপে কয়েকটি তথ্য দেওয়া যাক, প্রতিবছর স্বাধীনতা ও প্রজাতন্ত্র দিবস উদযাপনে হর্টিকালচার শো আয়োজন করে কর্ণাটকা রাজ্য। এটি ‘লালবাগ ফ্লাওয়ার শো’ নামে বেশি পরিচিত। রাজ্যের হর্টিকালচার দফতর ও মাইসোর হর্টিকালচার সোসাইটি যৌথভাবে এর আয়োজন করে।

লালবাগ ফ্লাওয়ার শো হওয়ার কারণ, লালবাগ বোটানিকাল গার্ডেনের গ্লাস হাউজে গাছ ও ফুলের প্রদর্শনীটি হয়ে থাকে। ভৌগলিক অবস্থানে বোটানিকাল গার্ডেনটি ব্যাঙ্গালোরের দক্ষিণ দিকে। এবার গত ০৪ আগস্ট থেকে শুরু হয়েছে শো, শেষ হবে ১৫ আগস্ট ভারতের স্বাধীনতা দিবসে।
 এবারের লালবাগ ফ্লাওয়ার শো কেন অনন্য- ছবি: বাংলানিউজ
কিন্তু এবারের ফ্লাওয়ার শো-তে এমন বিশেষ কিছু আয়োজন রয়েছে যা আগের ২০৫টি প্রদর্শনীতে করা হয়নি। লেখা যায়, লালবাগ ফ্লাওয়ার শো-এর ইতিহাসে এই প্রথম।

সংখ্যার দিক থেকেও ২০৬তম শো এগিয়ে, ২০ হাজারেরও বেশি টবে রোপণ করা গাছ ও দুইশোরও বেশি প্রজাতির ফুল রয়েছে প্রদর্শনীতে। আয়োজকরা যেটিকে বলছে, স্মরণীয় মাইলফলক।
এবারের লালবাগ ফ্লাওয়ার শো কেন অনন্য- ছবি: বাংলানিউজ
এছাড়া ফ্লাওয়ার শো-এ প্রথমবারের মতো আড়াইশো সিমবিডিয়াম ফুল রাখা হয়েছে। নেদারল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার এ ফুলগুলো হয়ে থাকে ভারতের সিকিম ও দার্জিলিংয়ে।
 
থাকছে ঠাণ্ডা আবহাওয়ার ফুল যেমন- ইমপ্যাশেন্স, বেগোনিয়া ও ফুচসিয়া। বিশেষ বাটারফ্লাই রেপ্লিকায় ব্যবহৃত হয়েছে গোলাপ, অর্কিড, ক্রিসেন্থেমাম ও কারনেশন।
এবারের লালবাগ ফ্লাওয়ার শো কেন অনন্য- ছবি: বাংলানিউজ
স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে তিন মাস আগে থেকে পরিচর্যা করা হয়েছে নয় লাখ চারা। এগুলো লালবাগ বোটানিকাল গার্ডেনের গ্লাস হাউজ ও ব্যান্ড স্ট্যান্ডের (বাজনাঘর) আশেপাশে ছাড়াও শহরের কেম্পেগৌড়া টাওয়ার, ডিরেক্টর’র ক্যাম্পাস, ডিএইচও লন, থ্রি ফসিল এরিয়া ও জাভা ফিগ এরিয়ায় লাগানো হবে। এগুলোর অধিকাংশই দীর্ঘজীবী ফুলগাছ।
 
এখানেই শেষ নয়! স্বাধীনতা দিবসের দিন (১৫ আগস্ট) ফুল দিয়ে বানানো ২৫টি শিল্পকর্ম শোভা পাবে বিভিন্ন জায়গায়। জায়গার হিসেব করলে শহরের ১০ হাজার বর্গফুট জুড়ে থাকবে ফুল।
এবারের লালবাগ ফ্লাওয়ার শো কেন অনন্য- ছবি: বাংলানিউজ
গ্লাস হাউজে প্রদর্শিত হচ্ছে ৮শ শিল্পকর্ম। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা প্রায় আড়াইশো কৃষক প্রদর্শন করছেন দুর্লভ সব গাছ।
 
এতো এতো আয়োজনের পেছনে রাজ্যের উদ্দেশ্য আগের প্রতিবেদনে একবার বলা হয়েছে, আবারও বলা যায়। ভালো কাজের কথা বারবার বললে ক্ষতি নেই!
 
‘বাচ্চা থেকে বুড়োরা যেনো হরেক প্রজাতির গাছ ও ফুল সম্পর্কে জানাতে পারে; সেইসঙ্গে সাধারণ মানুষ যেনো বন সংরক্ষণ ও গাছ লাগানোয় আগ্রহী হয়ে ওঠে।’

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৮ ঘণ্টা, আগস্ট ১৪, ২০১৭
এসএনএস

যেকোনো প্রকারে বাংলাদেশে শিশু শ্রম বন্ধ করে দেওয়া হবে
জাপানে হার দিয়ে অভিষেক ইনিয়েস্তার
এবার নির্বাচিত হলে ব্যবসা-বান্ধব নগর গড়বেন আরিফ
নালিতাবাড়ীতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত
কমলনগরে সড়ক দুর্ঘটনায় মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু
জাহিন স্পিনিংয়ের রাইট আবেদন বাতিল
মাস্টার্স ভর্তির দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন শুরু সোমবার
প্রতিটি জেলায় বিমানবন্দর নির্মাণ করা হবে 
বুধবার বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা কোটা আন্দোলনকারীদের
আন্তঃমোবাইল ব্যাংকিং চালুর কাজ চলছে: পলক